আটোয়ারীতে বীরমুক্তিযোদ্ধার সন্তান খুন ! আটক ৩!

111

সুপ্রভাত বগুড়া (আকাশ ইসলাম, আটোয়ারী (পঞ্চগড়): পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক বীরমুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে নৃশংসভাবে খুন করার খবর পাওয়া গেছে। এঘটনায় পুলিশ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে।

হত্যাকান্ডের শিকার যুবক হলেন উপজেলার ধামোর ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা সাবেক ইউনিয়ন কমান্ডার এবং পুরাতন আটোয়ারী এলাকার বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: শামসুল হকের ছোট ছেলে মো: আমিনুল ইসলাম (৩২)। এঘটনায় নিহত যুবকের বাবা বাদী হয়ে ৭ জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

আটোয়ারী থানার মামলা নম্বর-৫, তারিখ-২১ মে/২০২০খ্রি:। মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ও মামলা সুত্রে জানা গেছে, গত ১৯ মে দুপুর ১টায় পাটক্ষেতে গাছের ডাল কাঁটা নিয়ে প্রতিবেশী মৃত: বাংরু মোহাম্মদের ছেলে মো: ইসমাইল হোসেন সহ তার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে আমিনুলের পরিবার সহ তাদের প্রতিপক্ষ ইসমাইলের পরিবারের লোকজন আটোয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হন।

পরে আমিনুলের অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে ওই দিন রাত ৯.৪০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আমিনুল মৃত্যু বরণ করে।

এদিকে ঘটনার পরদিন (২০মে) বিকেলে নিহত আমিনুলের মরদেহ রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ নিয়ে এসে রাতে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়। এব্যাপারে নিহত আমিনুলের বড় ভাই এবং ধামোর ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারন সম্পাদক মো: সাহিদুল জব্বার শাহীন জানান, প্রতিপক্ষ পরিবারের সাথে আমাদের কখনও কোন বিরোধ ছিলনা।

সামান্য ঘটনায় তারা কেন আমার ছোটভাইকে মেরে ফেললো আমি খুনীদের ফাঁসী চাই। তিনি আরও বলেন, যেহেতু আমিনুলের লাশ নিয়ে তার পরিবারের সদস্যরা রংপুরে অবস্থান করছিলেন সেহেতু মামলা দায়ের করতে বিলম্ব হলো।

কেন আমিনুল কে তুচ্ছ ঘটনায় খুন করা হলো জানতে চাইলে আসামীপক্ষের লোকজন সঠিক কোন ব্যাখ্যা দিতে পারেন নি। এ ব্যাপারে হত্যা মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে আটোয়ারী থানার অফিসার ইনচার্জ মো: ইজার উদ্দীন বলেন,

তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা ব্যক্তিদের ঘটনার দিন থেকে নজরবন্দী করে রাখে। বাদীপক্ষ মামলা দায়ের করার সঙ্গে সঙ্গে নজরবন্দীকৃত  তিন জনকে গ্রেফতার করি।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন মো: ইসমাইল হোসেন(৫৫) এবং তার দুই ছেলে রইছুল ইসলাম (২০) ও সাহিদুল ইসলাম শাকিব (১৮)। তিনি আরো বলেন, অন্যান্য আসামীদেরকেও গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে