ঈদুল ফিতরের আগে পরে ১২ দিনে সড়কে ৬৮১ জনের ১৯০-ই মোটর সাইকেলে নিহত!

49
ঈদুল ফিতরের আগে পরে ১২ দিনে সড়কে ৬৮১ জনের ১৯০-ই মোটর সাইকেলে নিহত!
সেভ দ্য রোড-এর প্রতিবেদন

২০২২ সালের ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ২৮ এপ্রিল ঈদযাত্রা ও ৪ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত ঈদফেরার সড়কপথে দুর্ঘটনা ঘটেছে ৩ হাজার ১৭৮ টি, আহত হয়েছেন ২ হাজার ৭৭ জন এবং নিহত হয়েছে ৬৮১ জন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায়।

‘সেভ দ্য রোড-এর অঙ্গীকার পথ দূর্ঘটনা থাকবে না আর…’ শ্লোগান নিয়ে আকাশ-সড়ক-রেল ও নৌপথ দুর্ঘটনামুক্ত করার লক্ষ্যে দেশের একমাত্র স্বেচ্ছাসেবি সংগঠন সেভ দ্য রোড ২০০৭ থেকে কাজ করে যাওয়ার ধারাবাহিকতায় ২০২২ থেকে নিয়মিত মাসিক প্রতিবেদন দেয়ার পাশাপাশি ২ ঈদকে ঘিরে আগে ও পরে প্রতিবেদন দিচ্ছে সেভ দ্য রোড-এর গবেষণা সেল।

বাংলাদেশের ২৮ টি জাতীয় দৈনিক, বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা ও ইলেকট্রনিক্স চ্যানেলে প্রকাশিত-প্রচারিত তথ্যর পাশাপাশি সারাদেশে সেভ দ্য রোড-এর স্বেচ্ছাসেবিদের তথ্যানুসারে ২০২২ সালের ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ২৮ এপ্রিল থেকে ঈদযাত্রা ও ৪ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত ঈদফেরার সড়কপথে প্রায় ২৬ লক্ষ মোটর সাইকেল চালানোর সময় নিয়ম না মানা এবং হেলমেট ব্যবহারে অনীহার কারণে ১ হাজার ৬১৮ টি দুর্ঘটনায় আহত ৯৬৮ এবং

নিহত হয়েছেন ১৯০ জন; অসাবধানতা ও ঘুমন্ত চোখে-ক্লান্তিসহ দ্রæত চালানোর কারণে ৪০৭ টি ট্রাক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ৩২১ এবং নিহত হয়েছে ১৬৮ জন; খানা খন্দক, অচল রাস্তা-ঘাট আর সড়কপথ নৈরাজ্যের কারণে ৪৬৭ টি বাস দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে ৩১০ এবং নিহত হয়েছে ১৫৪ জন; পাড়া-মহল্লা-মহাসড়কে অসাবধানতার সাথে চলাচলের কারণে লড়ি-পিকআপ-নসিমন-করিমন-ব্যাটারি চালিত রিক্সা-সাইকেল ও সিএনজি দুর্ঘটনা ঘটেছে ৬৮৬ টি আহত হয়েছে ৪৭৮ জন এবং ১৬৯ জন নিহত হয়েছে।

সেভ দ্য রোড-এর চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব জেড এম কামরুল আনাম, প্রতিষ্ঠাতা মোমিন মেহেদী, মহাসচিব শান্তা ফারজানা, ভাইস চেয়ারম্যান বিকাশ রায়, জিয়াউর রহমান জিয়া ও ঢাকা সাব এডিটরস কাউন্সিলের সহ-সভাপতি আনজুমান আরা শিল্পী, আইয়ুব রানাসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ২০২২ সালের ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ২৮ এপ্রিল থেকে ঈদযাত্রা ও ৪ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত ঈদফেরার সড়কপথে দুর্ঘটনা ঘটেছে এই প্রতিবেদনে সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টি আলোচ্য তা হলো- ঈদযাত্রাকে কেন্দ্র করে কৃতিম টিকেট সংকট তৈরি করে ২ থেকে ৩ গুণ ভাড়া বাড়ানোর অপচেষ্টা করে যাচ্ছে একটি কুচক্রি মহল।

আর এই মহলে সম্পৃক্ত সরকারি দলের নেতাকর্মীদের পাশাপাশি পুলিশ-প্রশাসনের একটি বড় অংশ। তারা ঈদযাত্র ও ফেরাকে কেন্দ্র করে ১০ হাজার কোটি টাকারও বেশি চাঁদাবাজি করে জনগনের ভোগান্তি তৈরি করলেও পুলিশ-প্রশাসন নিরব ভূমিকা পালন করেছে; যার উত্তরণে সেভ দ্য রোড মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করছে।

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ২৮ এপ্রিল থেকে ঈদযাত্রা ও ৪ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত ঈদফেরার সড়কপথে দুর্ঘটনা ঘটেছে পর্যন্ত নৌপথ দুর্ঘটনা ঘটেছে ১৩৭ টি। আহত ৫৬১ জন, নিহত হয়েছে ২৮ জন। ২৮ এপ্রিল থেকে ঈদযাত্রা ও ৪ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত রেলপথ দুর্ঘটনা ঘটেছে ২২৮ টি। আহত হয়েছে ২৫৬ জন, নিহত হয়েছে ১৭ জন।

২৮ এপ্রিল থেকে ঈদযাত্রা ও ৪ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত আকাশপথে কোন দুর্ঘটনা না ঘটলেও বিমানবন্দরের অব্যবস্থাপনার কারণে অসুস্থ্য হয়েছেন অর্ধশতর বেশি মানুষ।

এছাড়াও সহজ-এর টিকিট জালিয়াতি, দূরপাল্লার পরিবহনে কৃতিম টিকিট সংকট ও পুলিশ প্রশাসনের চরম অবহেলায় এবার ঈদযাত্রা ও ঈদফেরায় অসহ্য যন্ত্রণা সহ্য করতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। যার উত্তরণে পদক্ষেপ না নিলে আসন্ন ঈদুল আযহাতেও চরম ভোগান্তির মুখোমুখি হতে হবে সাধারণ মানুষকে; বাড়বে আরো ২ গুণেরও বেশি সড়কপথ দুর্ঘটনা।