উচ্চপ্রবৃদ্ধির কাতারে বাংলাদেশ: আইএমএফ

96
উচ্চপ্রবৃদ্ধির কাতারে বাংলাদেশ আইএমএফ

বিশ্ব অর্থনীতিতে বড় ছোবল বসাচ্ছে ইউক্রেন যুদ্ধ। এবছর বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধি ৩ দশমিক ৬ শতাংশে নেমে আসার পূর্বাভাস দিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল -আইএমএফ। তবে বাংলাদেশকে উচ্চপ্রবৃদ্ধির কাতারেই রাখছে সংস্থাটি। আইএমএফ বলছে, চলতি অর্থবছর ৬ দশমিক ৪ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি দেখতে পারে বাংলাদেশ। তবে মূল্যস্ফীতি নিয়ে সুখবর নেই।

করোনার প্রকোপ কমায় গেল বছর ৬ দশমিক ১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি দেখেছিল বিশ্ব অর্থনীতি। পরিস্থিতি ভালো হওয়ায় এবছর প্রত্যাশা ছিল আরেকটু বেশি। কিন্তু দুঃসংবাদ দিলো আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল-আইএমএফ। সংস্থাটির ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুট প্রতিবেদন বলছে, চলতি বছরে বৈশ্বিক ৩ দশমিক ৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হতে পারে। পরের বছরেও বাড়ার সম্ভাবনা নেই।

বৈশ্বিক অর্থনীতির এমন দুর্দশায় ইউক্রেন যুদ্ধকে দায়ী করছে আইএমএফ। বড় কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে মূল্যস্ফীতিকেও। আইএমএফের পূর্বাভাস অনুযায়ী, এবছর উদীয়মান ও উন্নয়নশীল এশিয়ার গড় জিডিপি প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৫ দশমিক ৪ শতাংশ, ইউরো অঞ্চলে ২ দশমিক ৮ শতাংশ, মধ্যপ্রাচ্য ও সেন্ট্রাল এশিয়ায় ৪ দশমিক ৬ শতাংশ এবং যুক্তরাষ্ট্রে ৩ দশমিক ৭ শতাংশ। এছাড়া ধনী দেশগুলোর গড় হবে ৩ দশমকি ৩ শতাংশ।

তবে সবচেয়ে খারাপ খবর যুদ্ধে জড়ানো ইউক্রেন ও রাশিয়ার জন্য। আইএমএফ বলছে, ২০২২ সালে ইউক্রেনের অর্থনীতি সংকুচিত হতে পারে ৩৫ শতাংশ, আর রাশিয়ার অর্থনীতি হারাবে সাড়ে ৮ ভাগ। প্রবৃদ্ধি অর্জনে ভারত শীর্ষে থাকবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আইএমএফ। সংস্থাটি বলছে দেশটিতে এবছর প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৮ দশমিক ২ শতাংশ।