উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা

29
উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা ছবি-সংগ্রহ

সুপ্রভাত বগুড়া (খেলা-ধুলা): উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা। শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেসের নৈপুণ্যে নাপোলিকে হারিয়ে লিগের কোয়ার্টার-ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বার্সা।

এ নিয়ে ১৩তম বারের মতো ইউরোপ সেরার প্রতিযোগিতার শেষ আটে নাম লেখালো কাতালানরা।

শনিবার (৮ আগস্ট) দিবাগত রাতে ঘরের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে নাপোলিকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা। প্রথম লেগে নাপোলির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছিল মেসি-সুয়ারেজরা।

এদিন ম্যাচের চারটি গোলই হয়েছে প্রথমার্ধে। দ্বিতীয়ার্ধে কোনো গোল হয়নি। ঘরের মাঠে গোল পেয়েছেন বার্সার ক্লেমেন্ট লেংলেট, লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেজ।

নাপোলির একমাত্র গোলটি করেছেন লরেঞ্জো ইনসিগনি।খেলা শুরুর ১০ মিনিটেই এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। এ সময় কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে মাথা লাগিয়ে জালে জড়ান ক্লেমেন্ট লেংলেট।

ম্যাচের ২৩তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেসি। সুয়ারেসের পাস থেকে বল পেয়ে প্রতিপক্ষের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়কে পরাস্ত করে বাঁ-দিক থেকে বাঁ পায়ের শটে জালে বল জড়ান ছয় বারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার।

চ্যাম্পিয়নস লিগের চলতি আসরে এটি মেসির তৃতীয় গোল।প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে উভয় দলই পেনাল্টি পায়। ডি-বক্সে মেসিকে নাপোলির কালিদু কুলিবালি ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

এই স্পট কিকে গোল করতে ভুল করেননি উরুগুইয়ান তারকা সুয়ারেস। ফলে ৩-০তে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। এর একটু পরেই ডি-বক্সে প্রতিপক্ষের ড্রিস মের্টেন্সকে বার্সেলোনার রাকিতিচ ফাউল করলে পেনাল্টি দেন রেফারি।

এই পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান কমান ইনসিগনি। তাতে আশা জাগে ইতালিয়ান ক্লাবটির শিবিরে। কিন্তু বিরতির পর তারা যেমন জালের নাগাল আর পায়নি, তেমনি পায়নি বার্সেলোনাও।

অবশ্য কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে বার্সেলোনার আর কোনো গোলের প্রয়োজনও পড়েনি।কোয়ার্টার-ফাইনালে বার্সেলোনার প্রতিপক্ষ বায়ার্ন মিউনিখ।

দিনের অপর লড়াইয়ে চেলসিকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দুই লেগ মিলিয়ে ৭-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে শেষ আট নিশ্চিত করেছে জার্মান ক্লাবটি।