এবার ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হচ্ছেন সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম

25
এবার ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হচ্ছেন সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ছবি-সংগ্রহ

সুপ্রভাত বগুড়া (খেলা-ধুলা): কয়েক মাস আগে জাতিসংঘের শুভেচ্ছাদূত হয়েছিলেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল খান।

এবার জাতিসংঘের শশু তহবিল ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হচ্ছেন সাবেক অধিনায়ক ও জাতীয় দলের তারকা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম।শুভেচ্ছাদূত হিসেবে জনপ্রিয় এই ক্রিকেটারকে পেতে ইতোমধ্যে আলাপ-আলোচনা শুরু করেছে ইউনিসেফ বাংলাদেশ।

প্রাথমিক আলোচনা শেষে চূড়ান্ত হবে, মুশফিক ঠিক কবে থেকে ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করবেন।তার আগে অবশ্য মুশফিককে দিয়ে ইউনিসেফের প্রচারণা শুরু হয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) ইউনিসেফ বাংলাদেশের এক ফেসবুক পোস্টে মুশফিক ও তার ছেলে মায়ানের একটি ছবি পোস্ট করা হয়, যেখানে বাবা-ছেলে দুইজনই মাস্ক পরে আছেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারে সতর্কতা সৃষ্টির উদ্দেশে ছবির ক্যাপশনে লেখা হয়, ‘মাস্ক করোনা ভাইরাস রোধে সবচেয়ে শক্তিশালী হাতিয়ার। তাই আমাদের সবার প্রিয় মুশফিকুর রহিমের মতোই সবাইকে মাস্ক ব্যবহারে উৎসাহী করুন।’

সেইসঙ্গে মুশফিক ও মায়ানের এই ছবির মাধ্যমে অন্যদেরও সন্তানের মাস্ক পরা ছবি ও ভিডিও আহ্বান করেছে ইউনিসেফ বাংলাদেশ। পরামর্শ দিয়েছে বন্ধুদের জানানোর জন্যও।ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে মুশফিকই অবশ্য প্রথম ক্রিকেটার নন।

এর আগে শিশুদের জন্য গঠিত সংস্থাটির শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করেছেন জাতীয় দলের সাবেক তিন অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমন, মোহাম্মদ আশরাফুল ও সাকিব আল হাসান।

আশরাফুল ও বাশার দুজনই ২০০৫ সালে ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে মনোনীত হয়েছিলেন। সাকিব এই মর্যাদা পেয়েছিলেন ২০১৩ সালে। আর এবার তাদের দলে যুক্ত হচ্ছেন দেশের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মুশফিকের নামও।