এবার করেনায় আক্রান্ত হলেন বগুড়া সিভিল সার্জন ও সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা !!

71
করেনায় আক্রান্ত হলেন বগুড়া সিভিল সার্জন ও সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। ছবি-ওহাব

সুপ্রভাত বগুড়া (আবদুল ওহাব): বগুড়ায় এবার করেনায় আক্রান্ত হলেন সিভিল সার্জন ডা. গওসুল আজিম চৌধুরী এবং সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সামির হোসেন মিশু। শনিবার ২৭ জুন বগুড়া ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাাফিজুর রহমান তুহিন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ডা. তুহিন জানান, বগুড়ায় স্বাস্থ্য বিভাগের এ দুই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ভালো আছেন। সিভিল সার্জনের পরিবার ঢাকায় থাকায় তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল থেকে সেখানে পাঠানো হচ্ছে। আর ডা. মিশু নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

তিনি আরও জানান, টিএমএসএস মেডিক্যাল কলেজ ও রফাতউল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালে পিসিআর ল্যাবে প্রতিদিন ১৮৮ জন করে ৩৭৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব। অথচ প্রতিদিন ৫০০ জনের মত নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। এতে করোনা রিপোটিং এ জট বাধছে। ফলে চিকিৎসক ও জনগণকে দুর্ভোগ পড়তে হচ্ছে।

ল্যাবে নমুনা জট প্রসঙ্গে শজিমেক হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. রেজাউল আলম জুয়েল জানান, মেশিন ও লোকবল সংকটের কারণে এ সমস্যা হচ্ছে।

তবে অন্য চিকিৎসকরা দ্বিমত পোষণ করছেন। কেউ কেউ বলছেন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান টিএমএসএসকে সুবিধা দিতে শজিমেকে পিসিআর ল্যাবে মেশিন ও লোকবল বৃদ্ধি করা হচ্ছে না।

ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. তুহিন জানান, জেলায় এখন পর্যন্ত ১৬ হাজার ৪৮০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আর ফলাফল পাওয়া গেছে, ১৪ হাজার ৩১৯ জনের। তবে এ পর্যন্ত মৃত্যু সংখ্যা দাড়িয়েছে ৪৩ জনে।