করোনাকালে নিজেকে মানসিক চাপ থেকে রক্ষা করবেন যেভাবে

21
করোনাকালে নিজেকে মানসিক চাপ থেকে রক্ষা করবেন যেভাবে। প্রতিকী-ছবি

সুপ্রভাত বগুড়া (জীবন-জীবীকা): সম্প্রতি করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী এক মহামারীর রুপ নিয়েছে। প্রকৃতির আইনের কাছে ক্রমাগত অসহায় হয়ে পড়ছে মানুষ। মানুষের মাঝে দানা বাঁধছে নিশ্চয়তা-অনিশ্চয়তার জাল। অনেকে আবার মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছেন সমস্যার সম্ভাব্য সমাধান দেখতে না পেয়ে আত্ম হননের পথ পর্যন্ত বেছে নিচ্ছেন। তাই এই হতাশা থেকে নিজেকে রক্ষা করে চলতে হবে। সাহস হারালে চলবে না

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। ফলে মানসিক চাপও বাড়ছে। কাজেই এই সময় শান্ত থাকার ও মানসিক চাপ কমানোর চেষ্টা করে যেতে হবে। নিজে শান্ত থাকলে সন্তানদেরও মানসিকভাবে সাহস ও সমর্থন দিতে পারবেন। করোনার এই ক্রান্তিকালে মানসিক চাপ কমাতে করণীয় সম্পর্কে পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

আপনি এক নন
* আপনার মতো বিশ্বজুড়ে কোটি মানুষ একই আতঙ্কে রয়েছে। যোগাযোগ বাড়ান। নিজের কথা বলুন, অন্যদের কথা শুনুন। আতঙ্কিত করে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের এমন খবর এড়িয়ে চলুন।

বিরতি নিন
আমাদের সবারই বিরতি দরকার। বাচ্চারা ঘুমে থাকলে মজার কিংবা মানসিক চাপ কমায়, এমন কিছু করুন।

সন্তানদের কথা শুনুন
* সন্তানদের কথা শুনুন। আপনার সমর্থন তাদের প্রয়োজন। তাদের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা ও মানসিক চাপ কমানোর চেষ্টা করুন।

সাময়িক বিরতি নিন
চাপ বা আতঙ্কবোধ করলে তা কমাতে এক মিনিটের যেকোনো কাজ আপনি করতে পারবেন।

[বিরতি নিলে নিজেকে শান্ত করার সুযোগ পাবেন আপনি। এমনকি মাত্র কয়েকটি গভীর শ্বাস আপনার অনুভূতি বদলে দিতে পারে।]

ধাপ-১: প্রস্তুত
* মেঝেতে আসন কেটে বসুন, হাত দুটি কোলের ওপর রাখুন।
* চোখ বন্ধ করুন।

ধাপ-২: চিন্তা, অনুভূতি, শরীর
* নিজেকে জিজ্ঞেস করুন, ‘আমি কী চিন্তা করছি?’
* নিজের চিন্তাগুলো লক্ষ্য করুন। সেগুলো ইতিবাচক না নেতিবাচক, যাচাই করুন।
* আপনার মানসিক অবস্থা যাচাই করুন। মন খারাপ, না ভালো- লক্ষ্য করুন।
* আপনার শারীরিক অবস্থা বোঝার চেষ্টা করুন। কোথাও কোনো টান বা ব্যথা অনুভব হয় কি না, লক্ষ করুন।

ধাপ-৩: শ্বাস প্রশ্বাস লক্ষ করুন
* শ্বাসপ্রশ্বাসের গতিবিধি ও শব্দ লক্ষ করুন
* পেটের ওপর হাত রেখে শ্বাসপ্রশ্বাস অনুভব করতে পারেন।
* আপনি নিজেকে বলতে পারেন, ‘সবকিছু ঠিক আছে। যা-ই ঘটুক না কেন, আমি ঠিক আছি।’
* এরপর কিছু সময় কেবল নিজের শ্বাসপ্রশ্বাসের শব্দই শুনে যান।

ধাপ-৪: ফিরে আসা
* আপনার পুরো শরীরের অবস্থা লক্ষ করুন
* যে ঘরে রয়েছেন, সেখান পারিপার্শ্বিক শব্দগুলোয় লক্ষ করুন।

ধাপ-৫: ভাবুন
* ভাবুন, ‘আমার কি ভিন্ন রকম বোধ হচ্ছে?’
* যখন মনে হবে আপনি প্রস্তুত, তখন চোখ খুলুন।