করোনা বদলে দিয়েছে অনেক কিছু-বিশ্ব ইতেহাসে এই প্রথম জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ভার্চুয়াল অধিবেশন

25

সুপ্রভাত বগুড়া (আন্তর্জাতিক): বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস মহামারি ছড়িয়ে পড়ার কারণে ইতিহাসে এই প্রথমবারের মত জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশন ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক এই সংস্থাটির পক্ষ থেকে বুধবার এমন ঘোষণা দেওয়া হয়। খবর এএফপি’র।

জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলোর কাছে নাইজেরিয়ার তিজানি মুহাম্মাদ বন্দের পাঠানো পত্রে বলা হয়, এখন পর্যন্ত আগামী ২২ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর এই অধিবেশনের তারিখ নির্ধারিত রয়েছে। এতে করে বিশ্ব নেতাদের ভাষণ আগে থেকেই রেকর্ড করা যাবে, পরে অধিবেশনে সম্প্রচার করা হবে।

ওই পত্রে মুহাম্মাদ বন্দে লেখেন, ‘আমি ধারণা করছি, মহামারি করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ার কারণে আন্তর্জাতিক ভ্রমণ এবং সশরীরে উপস্থিতিতে ব্যাপক পরিসরে সভা আয়োজনের ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা রয়েছে এবং সম্ভবত এই মহামারি ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরেও বিভিন্ন মাত্রায় বিরাজমান থাকতে পারে।’

তিনি বলেন, সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে দেশের প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, কোন মন্ত্রী বা জাতিসংঘ দূতের (পূর্ব প্রচারে নিষেধাজ্ঞা সম্বলিত) সর্বোচ্চ ১৫ মিনিটের একটি ভাষণ অধিবেশন শুরুর কমপক্ষে পাঁচ দিন আগে অবশ্যই জাতিসংঘে পাঠাতে হবে।

তবে, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের মঞ্চ থেকে ভাষণ সম্প্রচার বা পাঠ করার সময় প্রত্যেক মিশনের একজন করে কূটনীতিক সরাসরি চলা অধিবেশনে অংশ নিতে পারবেন। এর আগে গত মাসে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংকটের কারণে পরিকল্পনা অনুযায়ী সেপ্টেম্বরে বিশ্ব নেতাদের মিলিত হওয়া অসম্ভব হতে পারে।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশন হচ্ছে বিশ্বের বৃহত্তম কূটনৈতিক সমাবেশ। বিশ্ব নেতাদের এ সম্মেলনের ফাঁকে তাদের মধ্যে আরো কয়েকশ’ সভা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। এসব সভার মধ্যে অনেক দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকও থাকে।

১৯৪৫ সালে জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ সংস্থার সাধারণ পরিষদের অধিবেশন কখনো বাতিল করা হয়নি। তবে, তা দু’বার স্থগিত করা হয়। যা ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে হামলার কারণে একবার এবং আর্থিক সংকটের কারণে ১৯৬৪ সালে আরেক বার।