করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সব দেশের পারস্পরিক সহযোগীতা প্রয়োজন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

13
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। ছবি-সংগ্রহ

সুপ্রভাত বগুড়া (জাতীয়): আজ বুধবার (১৭ জুন) বাংলাদেশে সফররত চীনের ১০ সদস্যের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দলের সঙ্গে সিলেট ও চট্টগ্রামের চিকিৎসকদের ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মতবিনিময় সভায় উদ্বোধনী বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) এখন বৈশ্বিক সমস্যা এবং তা মোকাবিলায় সব দেশের পারস্পরিক সহযোগিতা প্রয়োজন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সরকার করোনা মোকাবিলায় সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও চীন করোনা মোকাবিলায় পারস্পরিক সাহায্য অব্যাহত রেখেছে। সফররত চীনের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দলের অভিজ্ঞতা থেকে বাংলাদেশের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা উপকৃত হচ্ছেন। ড. মোমেন বলেন, চীনের উহান থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে সারাবিশ্ব অত্যন্ত কঠিন সময় পার করছে।

চীন সর্বপ্রথম করোনাভাইরাসের ভয়াবহতার শিকার হয়। করোনার ভয়াবহতা মোকাবিলায় চীনের সফলতা সারাবিশ্বে রোল মডেল হিসেবে কাজ করবে। চীন করোনা মোকাবিলায় জরুরি হাসপাতাল নির্মাণ, কঠোরভাবে কোয়ারেন্টাইন মেনে চলাসহ দ্রুত বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করে উদাহরণ সৃষ্টি করেছে। চীন সরকার ও দেশটির বেসরকারি সংস্থা আলিবাবা এবং জ্যাকমা ফাউন্ডেশনকে বাংলদেশের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য তিনি ধন্যবাদ জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ সহযোগিতাকে বাংলাদেশের প্রতি চীনের জনগণ ও সরকারের বন্ধুত্বের নিদর্শন হিসেবে উল্লেখ করেন। এ সময় ড. মোমেন করোনা পরিস্থিতিতে উহান প্রদেশসহ চীনের বিভিন্ন অংশে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি ছাত্রদের সহযোগিতার জন্য চীন সরকার ও দেশটির জনগণকে ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশকে করোনা চিকিৎসায় সহযোগিতার জন্য চীনের ১০ সদস্যের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল গত ৮ জুন ঢাকায় আসে। আগামী ২২ জুন পর্যন্ত বাংলাদেশে অবস্থান করবেন তারা। ভিডিও কনফারেন্সে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. ইউনুছুর রহমান ও বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং সংযুক্ত ছিলেন।