ক্যারিয়ার গড়ুন কম্পানি সচিব পদে

11
ক্যারিয়ার গড়ুন কম্পানি সচিব পদে

যত কাজের সুযোগ : কম্পানি সচিব পদে চাকরির সুযোগ আছে সরকারি প্রতিষ্ঠান, সরকারি-বেসরকারি সব ধরনের ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বীমা কম্পানি, স্টক এক্সচেঞ্জ, আর্থিক সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠান, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বহুজাতিক কম্পানি, সব ধরনের গ্রুপ অব কম্পানি, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাসহ ব্যক্তি বা সরকার মালিকানাধীন পাবলিক লিমিটেড কম্পানি বা প্রাইভেট লিমিটেড কম্পানিগুলোতে।

কম্পানি সচিব পদ ছাড়াও সুযোগ আছে সহকারী কম্পানি সচিব, উপ-কম্পানি সচিব, চিফ কমপ্লায়েন্স অফিসার, চিফ রেগুলেটরি অফিসার, সেক্রেটারিয়াল অডিটর, কমপ্লায়েন্স অডিটরসহ বিভিন্ন ঊর্ধ্বতন পদে চাকরির। এ ছাড়া ইনকাম ট্যাক্স প্র্যাকটিশনার, প্রাইভেট সেক্রেটারিয়াল প্র্যাকটিশনার, ভ্যাট কনসালট্যান্ট প্র্যাকটিশনারসহ গ্রুপ অব কম্পানিসমূহের ব্যবস্থাপনায় ভূমিকা পালন করা অনেকগুলো পদে উচ্চতর বেতন-ভাতাসহ কাজের সুযোগ রয়েছে।

Pop Ads

কাজের আগে প্রফেশনাল ডিগ্রি : ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ-এর এডুকেশন কমিটির চেয়ারম্যান এবং আইডিএলসি ফিন্যান্স পিএলসির গ্রুপ চিফ করপোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার অ্যান্ড গ্রুপ কম্পানি সেক্রেটারি আবুল ফজল মোহাম্মদ রুবাইয়াত এফসিএস বলেন, কম্পানি সচিব হলো একটি কম্পানির চিফ কমপ্লায়েন্স অফিসার, যিনি একটি কম্পানির কার্যকরী প্রধানদের সঙ্গে যোগাযোগ, সমন্বয় সাধন, কম্পানি আইন, সিকিউরিটিজ আইনসহ সার্বিক নিয়মাবলির যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করে থাকেন।

তাই কম্পানি সচিব বা এ সম্পর্কিত পদগুলোতে কাজ করতে আগে দরকার প্রাতিষ্ঠানিক প্রফেশনাল ডিগ্রি ও কাজের বিষয় সংশ্লিষ্ট দক্ষতা। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, চার্টার্ড সেক্রেটারি বিষয়ে প্রফেশনাল ডিগ্রি পেশাগত দক্ষতা ও জ্ঞানের পরিধিকে যেমন বৃদ্ধি করে, তেমনই একজন চার্টার্ড সেক্রেটারি অন্য সাধারণ কর্মীর তুলনায় সার্বিকভাবেই অনেক আপডেটেড থাকেন। সে হিসেবে যাঁরা এ পেশায় আসতে চান বা বর্তমানে কর্মরত আছেন তাঁদের জন্য আইসিএসবির চার্টার্ড সেক্রেটারি প্রফেশনাল ডিগ্রি নেওয়া খুবই দরকারি। কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতি বা নতুন চাকরিপ্রাপ্তির ক্ষেত্রেও চার্টার্ড সেক্রেটারি প্রফেশনাল ডিগ্রি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

যাঁরা আগামীতে কম্পানি সচিব বা এ খাতে কাজ করতে চান তাঁদের অন্যদের চেয়ে সামগ্রিকভাবে এগিয়ে রাখবে এ ডিগ্রি।

চার্টার্ড সেক্রেটারি ডিগ্রির আদ্যোপান্ত : আইসিএসবি সূত্রে জানা যায়, চার্টার্ড সেক্রেটারি কোর্সটিতে ভর্তির দুটি প্রবেশদ্বার রয়েছে। একটি সার্টিফিকেট লেভেল এবং অপরটি ফাউন্ডেশন লেভেল। বাণিজ্য (ইঁংরহবংং) শাখায় ন্যূনতম স্নাতক (বিকম/বিকম-অনার্স/ বিবিএ/এমবিএ) ডিগ্রি ও কমপক্ষে ৬ পয়েন্টের অধিকারী যাঁরা তাঁরা সরাসরি ‘সার্টিফিকেট লেভেল-১’-এ ভর্তির আবেদন করতে পারবেন।

এ ছাড়া সমধর্মী অন্যান্য প্রতিষ্ঠান থেকে পেশাগত ডিগ্রি অর্জন করে থাকলেও ‘সার্টিফিকেট লেভেল-১’-এ ভর্তির আবেদন করা যায়। সার্টিফিকেট লেভেলে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের সার্টিফিকেট লেভেল-১, ২, ৩ এবং প্রফেশনাল লেভেল-১, ২সহ মোট পাঁচটি লেভেলে ১৮টি বিষয় অধ্যয়ন করতে হয়। স্বাভাবিকভাবে কোর্সটির ব্যাপ্তিকাল হয় দুই বছর ছয় মাস। অন্যদিকে বিজ্ঞান বা মানবিক শাখা থেকে স্নাতক ডিগ্রিধারী প্রার্থীদের ‘সার্টিফিকেট লেভেল-১’-এ ভর্তির আগে আবশ্যিকভাবে ছয় মাসের ‘ফাউন্ডেশন লেভেল’ সম্পন্ন করতে হয়। বাণিজ্য শাখা থেকে যাঁরা ৬ পয়েন্টের কম নিয়ে স্নাতক ডিগ্রি পাস করেছেন; তাঁদেরও ‘ফাউন্ডেশন লেভেল’-এ ভর্তির সুযোগ রয়েছে।

এ ছাড়া এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পাওয়া প্রার্থীরাও ‘ফাউন্ডেশন লেভেল’-এ ভর্তির সুযোগ পান। ‘ফাউন্ডেশন লেভেল’-এর চারটি বিষয় সফলভাবে করার পর শিক্ষার্থীরা ‘সার্টিফিকেট লেভেল-১’-এ ভর্তি হতে পারেন। ফাউন্ডেশন লেভেলে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের ফাউন্ডেশন লেভেল, সার্টিফিকেট লেভেল-১, ২, ৩ এবং প্রফেশনাল লেভেল-১, ২সহ ছয়টি লেভেলে মোট ২২টি বিষয় সফলভাবে সম্পন্ন করতে হয়। স্বাভাবিকভাবে কোর্সটির মেয়াদকাল হয় তিন বছর। আইসিএসবিতে দিবা ও সন্ধ্যাকালীন ক্লাসের সুযোগ রয়েছে।

চার্টার্ড সেক্রেটারি কোর্সে আবেদন : ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ-এর পরিচালক (শিক্ষা) কাজী আন্দালিব আমীন জানান, কম্পানি সচিব হওয়ার জন্য চার্টার্ড সেক্রেটারি প্রফেশনাল ডিগ্রি নেওয়া আবশ্যক। চার্টার্ড সেক্রেটারি কোর্সের ‘জানুয়ারি-জুন ২০২৪’ সেশনে (৫৩তম ব্যাচ) আবেদনের শেষ তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০২৪।