গত ৫০০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ খরার মুখে ইউরোপ

100
গত ৫০০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ খরার মুখে ইউরোপ

গত ৫০০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ খরার মুখে ইউরোপ। এ মহাদেশের দুই-তৃতীয়াংশ অঞ্চল সতর্কতার আওতায় রয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের খরা পর্যবেক্ষণ সংস্থা গ্লোবাল ড্রাউট অবজারভেটরির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। স্মরণকালের ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ খরায় ধুঁকছে ইউরোপ।

বছরের শুরু থেকেই মারাত্মক খরার প্রভাব দেখা যাচ্ছে মহাদেশটির অনেক অঞ্চলে। আগস্টের শুরু থেকে তা আরও বেড়েছে। এবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের খরা পর্যবেক্ষণ সংস্থা গ্লোবাল ড্রাউট অবজারভেটরির প্রতিবেদনে সতর্ক করা হয়েছে, এ বছর বিগত ৫০০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ খরার কবলে পড়তে পারে ইউরোপ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মাটির আর্দ্রতা শুকিয়ে যাওয়ায় ইউরোপের ৪৭ শতাংশের জন্য সতর্কতা ঘোষণা করা হয়েছে। গাছপালা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় মহাদেশের ১৭ শতাংশ এলাকা সতর্ক সংকেত জারির পরিস্থিতিতে রয়েছে। প্রতিবেদনে সতর্ক করে বলা হয়েছে, শুষ্কতার এই ধারা কৃষি খাতকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে এবং দাবানল ছড়াবে।

সেই সাথে ইউরোপের দক্ষিণাঞ্চলের কিছু অঞ্চলে খরা আরো কয়েক মাস স্থায়ী হতে পারে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ইউরোপের প্রায় সব নদীই কিছুটা হলেও শুকিয়ে গেছে। এতে নৌ চলাচল ছাড়াও প্রভাব পড়েছে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ওপর।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, জলবিদ্যুৎ শক্তি ২০ শতাংশ হারে কমেছে। এছাড়া কমেছে মৌসুমি ফসল উৎপাদনও। আগামী নভেম্বর পর্যন্ত পশ্চিম ইউরোপ এবং ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল স্বাভাবিক অবস্থার চেয়ে বেশি উষ্ণ থাকতে পারে বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।