জীবনের প্রথম ওয়ানডেতে পান্টের সেঞ্চুরি !

44
জীবনের প্রথম ওয়ানডেতে পান্টের সেঞ্চুরি

টেস্টের পর ওয়ানডে ক্রিকেটেও ব্যাট হাতে নিজেকে প্রমাণ করে ছাড়লেন উইকেটরক্ষক ব্যাটার রিশভ পান্ট। চাপের মুহূর্তে ক্রিজে নেমে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে হলেন ভারতের জয়ের নায়ক।

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ১-১ এ ছিল সমতা। রোববার ম্যানচেস্টারে হওয়া ম্যাচে টসে হেরে আগে ব্যাট করা ইংল্যান্ড ৪৫.৫ ওভারে ২৫৯ রানে অলআউট হয়। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভারত ৭২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে ছিল।

সেই অবস্থা থেকে ১১৩ বলে ১৬ চার ও ২ ছক্কায় ১২৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে ৪৭ বল আগেই টিম ইন্ডিয়ার ৫ উইকেটের জয়ে ভূমিকা রাখেন পান্ট। ম্যাচ সেরা পান্ট নিজের অসাধারণ ইনিংসটি নিয়ে বলেন, ‘আশা করি আমি আমার জীবনের প্রথম ওয়ানডে চিরকাল মনে রাখব।

যখন আমি সেখানে (ক্রিজ) ছিলাম, তখন আমি পুরোপুরি প্রতি বলের উপর দৃষ্টি রাখছিলাম।’ ভারতের ২৫ রানে ২ উইকেট হারানোর পর ব্যাট করতে নামা পান্ট মোটেও নিজেকে খোলসের ভেতর আটকে রাখেননি। মারমুখী ব্যাটিং করা নিয়ে জানালেন নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি।

তার মতে,দলের চাপের মুখে একজন ব্যাটারের আগ্রাসী হয়েই ব্যাটিং করা উচিৎ। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্রুত রান তাড়া করা প্রসঙ্গে ২৪ বর্ষী ক্রিকেটার বলেন, ‘আমি ইংল্যান্ডে খেলা উপভোগ করি এবং আমার ক্রিকেট উপভোগ করতে যা করতে পারি তাই করব।

আপনি যতো বেশি ক্রিকেট খেলবেন, ততো বেশি অভিজ্ঞতা অর্জন করবেন।’ দলের জয়ে নিজ দলের বোলারদের অসামান্য অবদানের কথা অবশ্য পান্ট ভুলে যাননি। ব্যাটিং উইকেটে তাদের ধারালো বোলিং যে ইংলিশদের বড় স্কোর গড়তে দেয়নি, সেটিও মনে করিয়ে দিলেন।’

‘এটা ব্যাট করার জন্য সেরা পিচ ছিল। তাই তাদের ২৬০ (২৫৯) এর ভেতর আটকে রাখাটা আমাদের বোলারদের কৃতিত্ব। শুধু এই খেলায় নয়, তারা সিরিজে ভালো বোলিং করেছে। শুধু এই সিরিজই নয়, তারা সারা বছরই দুর্দান্ত ছিল।’