ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির শুরুর দিনই ব্যাপক বিশৃংঙ্খলা

70
ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির শুরুর দিনই ব্যাপক বিশৃংঙ্খলা

ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির শুরুর দিনই দেখা যায় ব্যাপক বিশৃংঙ্খলা। অতিরিক্ত চাপে ঘটে হাতাহাতির ঘটনাও। ট্রেনের টিকিট কেনার এ যুদ্ধে হাতাহাতিতেও জড়িয়ে পড়ছেন অনেকে। কাউন্টার থেকে অনেকেই পাননি কাঙ্ক্ষিত টিকিট।

আর অনলাইনে প্রথম মিনিটেই সাড়ে ১২ হাজার টিকিটের বিপরীতে হিট হয় ৪ থেকে ৫ লাখ। কমলাপুরে মহিলা ও প্রতিবন্ধিদের জন্য কাউন্টার একটাই। ফলে সেখানে বিশৃংঙ্খলার অন্ত নেই। প্রথম দিন দেয়া হয়েছে ৫ জুলাইয়ের টিকিট। যা পেয়ে খুশি অনেকেই।

তবে টিকিট না পেয়ে হতাশার গল্পটাও স্বল্প নয়। কমলাপুর রেলস্টেশনের ম্যানেজার মাসুদ সারওয়ার জানান, ২৭ হাজার টিকিটের বিপরীতে চাহিদা লাখ লাখ। তাই চাইলেও সবাইকে দেয়া যাবে না টিকিট। তিনি আরও জানান, যেকোনো সিদ্ধান্ত নেয়া বা দেয়ার ক্ষেত্রে আমাদের কোনও ভূমিকা নেই।

সব সিদ্ধান্তই আসে রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকে। আর টিকিট বিক্রি নিয়ে দুর্নীতি হওয়ার কোনও সুযোগ নেই।অনলাইন টিকিট বিক্রির প্রতিষ্ঠান সহজ কতৃপক্ষ জানায়, অনলাইন ও অ্যাপে কোনও সমস্যা নেই সক্ষমতা আছে কিন্তু টিকিট কম চাহিদা বেশি তাই অনেকে টিকিট পাচ্ছে না।

শনিবার দেয়া হবে ৬ জুলাইয়ের টিকিট। রাজধানীতে কমলাপুর রেলস্টেশনসহ ৬টি স্থান থেকে দেয়া হচ্ছে আগাম টিকিট। এ জন্য দিতে হচ্ছে এনআইডি অথবা জন্মসনদের ফটোকপি। আর একজন সবোর্চ্চ ৪টি টিকিট নিতে পারবেন।

উল্লেখ্য, ১ থেকে ৫ জুলাই পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে ৫ থেকে ৯ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হবে। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি হবে।