ঠাকুরগাঁওয়ে সমবায় সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে ঋণ গ্রহিতাকে মারপিট করে টাকা ছিনিয়ে নেওয়া অভিযোগ !

24
ঠাকুরগাঁওয়ে সমবায় সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে ঋণ গ্রহিতাকে মারপিট করে টাকা ছিনিয়ে নেওয়া অভিযোগ ! ছবি-আলমগীর

সুপ্রভাত বগুড়া (আলমগীর হোসেন, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি): ঠাকুরগাঁওয়ে গ্রামীণ সমবায় সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে ঋণ গ্রহিতাকে মারপিট করে পকেটে থাকা ত্রিশ হাজার পাঁচশত টাকা ছিনিয়ে নেওয়া অভিযোগ উঠেছে।

অভিযুক্ত সভাপতির নাম মো: মামুন। তিনি সদর উপজেলার শিবগঞ্জ নামক এলাকার মৃত রশিদুল ইসলামের ছেলে। আজ সোমবার (১৫ জুন) ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর এ অভিযোগ করেন একই উপজেলার ১০নং জামালপুর ইউনিয়নের বিশ্বাসপুর গ্রামের মৃত গুরু দয়ালের ছেলে কেশব বর্মন।

তিনি পেশায় একজন দর্জি ও গ্রামীণ সমবায় সমিতির একজন ঋণ গ্রহিতা। অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার শিবগঞ্জ বাজারে কেশব বর্মন এর একটি টেইলার্সের দোকান আছে।

ব্যবসায়িক প্রয়োজনে স্থানীয় গ্রামীণ সমবায় সমিতি থেকে দর্জি কেশব ১লক্ষ টাকা লোন নেন। সমিতি থেকে এক লক্ষ টাকা লোন নেওয়ার পূর্বে তাকে বলা হয় ৬ মাস মেয়াদী দৈনিক ৬০০ টাকা কিস্তিতে পরিশোধ করতে হবে এ টাকা।

এতে তিনি রাজি হওয়ায় তার কাছে অলিখিত ৩০০টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেওয়া হয় এবং উক্ত টাকা পরিশোধ হলে তাকে অলিখিত স্টাম্প গুলো ফেরত দিবে মর্মে জানানো হয়।

এদিকে আনুমানিক আট থেকে দশটি কিস্তি দেওয়ার পর দেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাব দেখা দেওয়ায় সরকার কর্তৃক লকডাউন এবং দোকানপাট সব বন্ধ ঘোষণা করায় উক্ত সমিতির ঋণ আদায় কার্যক্রমও বন্ধ থাকে। গত ৩১.০৫.২০২০ তারিখে দোকানপাট খোলার নির্দেশ হলে কেশব বর্মনও দোকান খোলেন।

সে সময় গ্রামীণ সমবায় সমিতির সভাপতি মোঃ মামুন দুপুর ২টায় তার সাঙ্গ পাঙ্গ নিয়ে দোকানে আসে এবং কিস্তির সমুদয় টাকা চায়। এসময় কেশব বর্মন উক্ত টাকা পরিশোধের জন্য কিছুদিন সময় চাইলে দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হয় এবং কেশব বর্মনকে মামুন বলে স্বাক্ষর করা লিখিত স্ট্যাম্পে জমি লিখে নিবে।

এ বিষয়ে কেশব বর্মন না স্বীকার করলে তার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ছোট ছড়া ও হাতুড়ি দিয়া হত্যার উদ্দেশ্যে তাকে আক্রমণ করে। এসময় ঘটনাস্থলে সে গুরুতর জখম হয় এবং তার পকেটে থাকা ৩০হাজার ৫ শত টাকা বের করে নেয় হামলাকারিরা। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ বিষয়ে কেশব বর্মন ঠাকুরগাঁও সদর থানায় একটি এজাহারও করেছেন। এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহি অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন বলেন, অভিযোগটি হাতে পেয়ে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা সমবায় অফিসারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ প্রদান করো হযেছে।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা সমবায় অফিসার মো: রেজাউল করিম জানান, এ বিষয়ে আমরা একটি অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব। এ বিষয়ে গ্রামীণ সমবায় সমিতির সভাপতি মামুনের সাথে বিস্তারিত জানার জন্য মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।