ধামইরহাটে কাল বৈশাখী ঝড়ে শ্রমিকের মৃত্যু, ধানের ক্ষতি !

101

সুপ্রভাত বগুড়া (মুত্তাখারুল হক, ধামইরহাট (নওগাঁ): নওগাঁর ধামইরহাটে কাল বৈশাখী ঝড়ে ছাদ ধসে কাবেজ উদ্দিন (৩০) নামের এক নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার আগ মুর্হুহে উপজেলার জাহানপুর সরকারপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

এছাড়া প্রচন্ড ঝড় ও বৃষ্টির কারণে ইরি বোরো ধানের ক্ষতি হয়েছে। জানা গেছে, উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নের অন্তর্গত বড়শিবপুর এলাকার সাদেকুল ইসলামের ছেলে কাবেজ উদ্দিন (৩০) একই এলাকার রাশিদুল ইসলামের মুরগীর সেডে ছাদ ঢালায় নির্মাণের জন্য কাজ করছিলেন।

প্রচন্ড ঝড়ের কারণে এক সাথে অনেক শ্রমিক তিনতলা থেকে নিচে নামার চেষ্টা করে। এ সময় নির্মাণাধীন ছাদের একাংশ শ্রমিক কাবেজ উদ্দিনের উপর ধসে পড়লে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। রাতেই স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ওসমান আলীর সহায়তায় এলাকাবাসীর কাবেজ উদ্দিনকে পারিবারিক কবরস্থানে তার দাফন করা হয়।

এদিকে প্রচন্ড ঝড় ও মুষলধারে বৃষ্টির কারণে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মাঠে ধান মাটিতে শুয়ে পড়েছে। বিশেষ করে জিরাশাইল ধানের বেশি ক্ষতি হয়েছে। অধিকাংশ ধান আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কাটা যেতো। অনেক এলাকায় ধানগাছ মাটিতে শুয়ে পানিতে তলিয়ে গেছে।

এছাড়া ঝড়ের কারণে ভুট্ট্রা ও গাছপালা উপুড়ে গেছে। জয়জয়পুর গ্রামের কৃষক আনিছুর রহমান বলেন,যেসব ধানগাছ মাটিতে পড়ে গেছে সেসব ধান কাটতে বেশি পারিশ্রমিক দিতে হবে। তাছাড়া পানিতে তলিয়ে যাওয়ার কারণে অনেক ধান নষ্ট হয়ে যাবে।

এবার ধামইরহাট উপজেলায় ১৬ হাজার ৩০ হেক্টর জমিতে ইরি বোরো চাষ হয়েছে। এব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সেলিম রেজা বলেন,কালবৈশাখি ঝড়ের কারণে এ উপজেলায় প্রায় ২শত ৫ হেক্টর জমির ধান এবং ৮ হেক্টর ভুট্টার গাছ মাটিতে শুয়ে পড়েছে।

হেলানো ধানগাছগুলো আবার দাঁড়িয়ে যাবে। এছাড়া পানিতে তলিয়ে যাওয়ার জমির পানি বের করে দিতে পারলে ধানের তেমন ক্ষতি হবে না।