নওগাঁর আত্রাইয়ে পূজার সকল প্রস্তুুতি সম্পন্ন কাল মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু 

221
নওগাঁর আত্রাইয়ে পূজার সকল প্রস্তুুতি সম্পন্ন কাল মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু । ছবি-প্রত্যয়

সুপ্রভাত বগুড়া (এমরান মাহমুদ প্রত্যয়,নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি): নওগাঁর আত্রাইয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার সব প্রস্তুতি শেষে বুধবার দুর্গতিনাশিনী দশভুজা দেবীর বোধন ও আগামীকাল (২২ অক্টোবর) বৃহস্পতিবার মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গাপূজার মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। ঢাকের বোল, কাঁসর ঘণ্টা, শাঁখের ধ্বনিতে মুখর হয়ে উঠবে দেশের পূজামন্ডপ। তবে এবার করোনা পরিস্থিতির কারণে পূজার জৌলুস কম।

হিন্দু সম্প্রদায়ের বিশ্বাস অনুযায়ী, প্রতি শরতে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে স্বর্গলোক কৈলাস ছেড়ে মর্তে আসেন দেবী দুর্গা। ছেলে-মেয়েদের নিয়ে নির্দিষ্ট তিথি পর্যন্ত বাবার বাড়িতে কাটিয়ে আবার ফিরে যান দেবালয়ে। দেবীর অবস্থানকালে পাঁচ দিন পৃথিবীতে ভক্তরা দেবী মায়ের বন্দনা করে। এই বন্দনাকে কেন্দ্র করে দেশবাসী মেতে ওঠে উৎসব আনন্দে। চলমান করোনা পরিস্থিতিতে সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গাপূজা উদযাপনে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পূজামন্ডপগুলোতে অতিরিক্ত পুলিশ, আনসার, র‌্যাবসহ সাদা পোশাকের পুলিশ নিয়োজিত থাকবে। এ ছাড়া মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী কাজ করবে।

পঞ্জিকা মতে, মহালয়া, বোধন ও সন্ধিপূজা এই তিন পর্ব মিলে দুর্গোৎসব। দেবীপক্ষের শুরু হয় যে অমাবস্যায়, সেদিন হয় মহালয়া। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, সেদিন ‘কন্যারূপে’ মর্তে আসেন দেবী দুর্গা। গত ১৭ সেপ্টেম্বর মহালয়ার মধ্য দিয়ে দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। আজ বুধবার পঞ্চমী তিথিতে দেবীর বোধন হবে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার মহাষষ্ঠী তিথিতে ষষ্ঠীপূজার মাধ্যমে শুরু হবে শারদীয় দুর্গোৎসবের মূল অনুষ্ঠান। আগামী সোমবার মহাদশমীতে প্রতিমা বিসর্জনে শেষ হবে দুর্গোৎসবের আনুষ্ঠানিকতা।

এ বিষয়ে ভাবানীপুর সার্বজনীন দূর্গা মন্দির কমিটির সভাপতি শ্রী. অনুপ কুমার দত্ত বাদল জানান, করোনা পরিস্থিতির কারনে বাংলাদেশ পুজা উদযাপন পরিষদ ২৬ টি নির্দেশনা আমাদেরকে দিয়েছেন। বর্তমান সরকার তাদের সার্বিকভাবে সহযোগীতার পাশাপাশি আর্থিক ভাবে ও সহযোগীতা করে আসছে। তিনি আরো বলেন, সব নির্দেশনা মেনে চলার মাধ্যমে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে উৎসব উদযাপন করা সম্ভব হবে বলে আশা করছি।

পুজাকে সামনে রেখে সম্ভবনার কথা জানালেন আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসলেম উদ্দিন জানান, শান্তিপূর্ন ভাবে হিন্দু ধর্মের প্রধান উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা অনুষ্ঠান সম্পুন্ন করার লক্ষে আইন শৃংখলা বাহিনী সজাগ দৃষ্টি রাখছে। আইন শৃংখলা বাহিনীর পক্ষ থেকে তিন স্থরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে এবং থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) ও সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) দের বিভিন্ন মন্ডপের দায়িত্ব দিয়ে নিয়মিত টহল দেওয়া হচ্ছে।

পাশাপাশি সবকটি পূজা মন্ডপ গোয়েন্দা নজরদারিতে থাকবে বলেও অফিসার ইনচার্জ জানিয়েছেন। অন্যান্য বছরের চাইতে এবার জোরালো প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। আশা করি এবারের পূজায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটবেনা। তবে এ জন্য তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ছানাউল ইসলাম বলেন, বৈশিক করোনা পরিস্থিতির কারনে  অন্যান্য বছরের তুলনায় এবারের পুজা একটু ভিন্ন ভাবে পালিত হবে। আশা করছি সরকারী  নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবে পুজা অনুষ্ঠিত হবে।
এমরান মাহমুদ প্রত্যয়