নওগাঁর বদলগাঁছী বাসীর আস্হার প্রতীক ও একজন চৌকস, অফিসার এস,আই গৌরাঙ্গ মোহন রায়

26

সুপ্রভাত বগুড়া (বুলবুল আহম্মেদ ( বুলু) নওগাঁ বদলগাঁছী প্রতিনিধি): বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর দুর্দান্ত চৌকস সৎ সাহসী কিছু পুলিশ অফিসার রয়েছে যারা তাদের সৎ সাহসকে পুঁজি করে জনগণের শান্তির জন্য দিন-রাত এক করে সকল অন্যায়কে বিতাড়িত করে পুলিশ বাহিনীকে প্রশংসিত করে তুলছেন। তেমনি একজন সৎ সাহসীবান পুলিশ কর্মকর্তা নওগাঁ জেলার বদলগাছী থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) গৌরাঙ্গ মোহন রায়। যিনি বদলগাছী থানায় যোগদান করার পর থেকে আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে তার উর্দ্দতনদের পাশাপাশি সাধারন জনগনের নজর কাঁড়তে সমর্থ হয়েছেন।

যার অক্লান্ত পরিশ্রমে অপরাধ দমনে যিনি দিন-রাত এক করে ডিউটি পালনের মাধ্যমে এগিয়ে চলছেন।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নওগাঁর পুলিশ সুপার প্রকৌশলী মোঃ আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম মহোদয়ের সার্বিক দিক নির্দেশনায় বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ এর নেতৃত্বে যথাযথ ভাবে দায়িত্ব পালনে অপরাধ দমন ও মাদক নিমূর্লে জন্য চৌকস ও সাহসীবান পুলিশ কর্মকর্তা হিসাবে জনগনের মাঝে গ্রহন যোগ্য ব্যক্তিতে পরিচিতি পেয়েছেন।

শুধু তাই নয় বিভিন্ন মামলার পলাতক আসামি, মাদক, ওয়ারেন্ট আসামি সহ সকল অপরাধ দমনে এক দুর্দান্ত ভূমিকার পরিচয় দেন তিনি। কোথাও কোন অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটার সংবাদ পাওয়া মাত্র থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এর নজরে দিয়ে দ্রুত ঘটনা স্থলে উপস্থিত হন এবং সেখানকার সমস্যা সমাধান করেন। তিনি বদলগাছী থানা এলাকার মাদক উদ্ধারে সবচেয়ে বড় ভুমিকা রেখেছেন। ২০১৯ সালে জানুয়ারী মাসে ১০৪ কেজি গাঁজা উদ্ধারের মাধ্যমে বদলগাছীর সাধারণ মানুষের নজর কাড়েন। পরবর্তীতে বদলগাছী থানা এলাকায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান ইয়াবা, গাঁজা, গাঁজার গাছ, হেরোইন, ফেন্সিডিল, চোলাইমদ সহ নানা ধরনের মাদক উদ্ধার পরিচালনা করেন।

গত জুলাই ২০২০ মাসে ৬০ বেতল ফেন্সিডিল, ৬ কেজি গাঁজা ও ২৪ পিচ এ্যাম্পুল (ইয়াবা) উদ্ধার করেন। বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জনাব চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ এর নেতৃত্বে বদলগাছী থানা থেকে মাদক নির্মূলে ও বদলগাছী থানা এলাকা থেকে দালাল মুক্ত করার জন্য সর্বত্তক চেষ্টা করে যাচ্ছে। এ জন্য কিছু মাদক ব্যবসায়ী ও দাদলাচক্র তাকে সরানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের অপচেষ্টা করে যাচ্ছে। কিন্ত বদলগাছীর সাধারণ মানুষ তার পাশে আছে ও তাকে অনেক ভালোবাসে বলে দুস্কৃতিকারীরা অপচেষ্টা করে সফল হতে পারছে না।

বদলগাছী বিলাশবাড়ী ইউপির চেয়ারম্যান জনাব কেটু জানান যে, এসআই গৌরাঙ্গ একজন ভালো অফিসার। তিনি বিলাশবাড়ী এলাকার সাধারণ মানুষের খোঁজ খবর নেন এবং কোথাও মাদকের তথ্য পাওয়া মাত্রই তিনি সেখানে অভিযান চালিয়ে সেটা নিমূর্লের চেষ্টা করেন। বদলগাছী কোলা ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান জনাব স্বপন বলেন, এক সময় কোলা ইউনিয়নে প্রচুর মাদক বেচা-কেনা হত কিন্তু বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ যোগদানের পর তার নেতৃত্বে এসআই গৌরাঙ্গ মাদক নিমূর্লে কঠোর ভূমিকার রেখেছেন। বর্তমানে কোলা ইউনিয়নে মাদক নেই বললেই চলে। তাকে কোলা ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ অনেক ভালোবাসে।

বদলগাছী উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও নওগাঁ বদলগাঁছী থানা আওয়ামীলীগ যুবলীগ সভাপতি জনাব মোঃ ইমামুল আল হাসান(তিতু) বলেন এসআই গৌরাঙ্গ মহন বদলগাছী থানা এলকার মাদক উদ্ধারে যে ভুমিকা রেখেছে তা দেখে বদলগাছীবাসী তার প্রতি আস্থা বেরেছে। পূর্বে জামাত- শিবির সর্মথন করা দু-তিনজন ব্যাক্তি তাকে সরানোর জন্য বিভিন্ন অপচেষ্টায় লিপ্ত আছে যা বদলগাছী বাসি হতে দেবে না। তার মত অন্যন্যা পুলিশ সদস্যরা বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জনাব চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ এর নেতৃত্বে আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে এগিয়ে চলছে দুর্বার গতিতে। যে কারনে নওগাঁ জেলার মধ্যে বদলগাছী থানা পুলিশের প্রশংসা অনেক বেশি