নওগাঁর বদলগাছীতে ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার দাবীতে গণস্বাক্ষর কার্যক্রম শুরু

309
নওগাঁর বদলগাছীতে ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার দাবীতে গণস্বাক্ষর কার্যক্রম শুরু। ছবি-বুলবুল

সুপ্রভাত বগুড়া (বুলবুুল আহম্মেদ ( বুলু),নওগাঁ বদলগাঁছী প্রতিনিধি): নওগাঁর বদলগাছীতে ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার দাবীতে গণস্বাক্ষর কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার(৮ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় বদলগাছী চৌরাস্তা মোড়ে তিনদিন ব্যাপী এই গণস্বাক্ষর কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বদলগাছী উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যুবলীগ সভাপতি বদলগাছী উপজেলা শাখা ইমামুল আল হাসান (তিতু)
স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘আমরা-ই বদলগাছী’ এ গণস্বাক্ষর কর্মসূচির আয়োজন করে।

‘আমরা-ই বদলগাছী’র সভাপতি মীর সাব্বির আহমেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো স্বাক্ষর করেন বদলগাছী সরকারি মডেল পাইলট হাইস্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক ও ‘আমরা-ই বদলগাছী’র উপদেষ্টা মোজাফ্ফর হোসেন উকিল, উপদেষ্টা মিঠাপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মির মহীউদ্দীন আলমগীর, আধাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন চৌধুরী, কারিগরি কলেজের সহকারি অধ্যাপক সরদার গোলাম কিবরিয়া, মনিরুল ইসলাম সাজু, সাহাব উদ্দিন, রজত গোস্বামী, বাবর আলী, গণমাধ্যমকর্মী ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন নেতাকর্মী প্রমূখ ।

‘আমরা-ই বদলগাছী’র সভাপতি মীর সাব্বির আহমেদ চৌধুরীর জানান, তিন দিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত গণস্বাক্ষর কার্যক্রম শেষে স্বাক্ষরিত অনুলিপি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসক ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বরাবর প্রেরণ করা হবে। মোট ১১৩৫ জনের স্বাক্ষর গ্রহণের মাধ্যমে ১০ই অক্টোবর এই কর্মসূচি সমাপ্ত হয়েছে। “আমরা-ই-বদলগাছী” সংগঠনের উপদেষ্টা মিঠাপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মীর মহীউদ্দীন আলমগীর নির্দেশনামূলক বক্তৃতা ও মোজাফফর হোসেন উকিল এর সমাপনী বক্তৃতার মাধ্যমে গণস্বাক্ষর কার্যক্রম এর সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

“আমরা-ই-বদলগাছী” থেকে সভাপতি মীর সাব্বির আহম্মেদ চৌধুরী জানান যে ১১৩৫ জনের স্বাক্ষর সম্বলিত ১০ ফুটের ব্যানার উপজেলা সদরের চার মাথার মোড়ে প্রতিকীরূপে টানিয়ে দেওয়া হবে যা বদলগাছীতে আগত ও অবস্থান রত সবাইকে এই দৃশ্যমান বার্তা দিবে যে, “এই শহর নারীদের জন্য নিরাপদ” ‘বদলগাছী উপজেলা বাংলাদেশের প্রথম উপজেলা যেখানে দল মত নির্বিশেষে এতগুলো জনসাধারণের স্বাক্ষরকৃত ধর্ষণ এর বিরুদ্ধে অবস্থান ব্যানার রুপে ঝুলছে’ এই দৃশ্যমান ব্যানার বারবার ধর্ষণের বিরুদ্ধে আমাদের ও অন্যদের অবস্থান আমাদেরকে স্মরণ করিয়ে দিতে সাহায্য করবে।