নওগাঁয় সাবেক মেম্বারের বিরুদ্ধে গভীর রাতে ঘুমন্ত গৃহবধূর গোপনাঙ্গে লাঠির আঘাতের অভিযোগ !

130
নওগাঁয় সাবেক মেম্বারের বিরুদ্ধে গভীর রাতে ঘুমন্ত গৃহবধূর গোপনাঙ্গে লাঠির আঘাতের অভিযোগ !

অন্তর আহম্মেদ নওগাঁ : নওগাঁর বদলগাছীতে গভীররাতে শয়নঘরের জানালা দিয়ে ঘুমন্ত গৃহবধূর গোপনাঙ্গে স্বজোরে বাঁশের সুচালো লাঠি (কারুলের)আঘাতে জখম করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক সাবেক ইউপি মেম্বার এর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মিঠাপুর ইউনিয়নের হাজিপুর গ্রামে। অভিযোগও স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, উপজেলার মিঠাপুর ইউপির হাজিপুর গ্রামে মোহাক্কেক হোসেন এর ছেলে আবু মাসুমের সাথে ১যুগ আগে বিয়ে হয় কবিতা পারভিনের।

বিয়ের পর থেকেই একই গ্রামের মৃত তাজুল ইসলাম এর ছেলে সফিউল ইসলাম বুলবুল গৃহবধূ কবিতাকে প্রায় কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। গৃহবধূর স্বামী প্রতিবেশী বুলবুলকে একাধিক বার বারন করে এই সব বাজে কুপ্রস্তাব দেওয়া থেকে। গত ১৯শে জুলাই রাতে ঐ গৃহবধূ তার স্বামীর সাথে শয়ন করে ঘুমিয়ে ছিল।হঠাৎ রাত ২টার দিকে বাড়ির পূর্ব পাশের দিকে জানালার পাল্লা কৌশলে খুলে বুলবুল ঘরে ঘুমন্ত গৃহবধূর গোপনাঙ্গে একটি বাঁশের লাঠি (কাড়ুল)দিয়ে স্বজোরে আঘাত করে। হঠাৎ গৃহবধূ চিৎকার করলে তার স্বামী বাড়ির দরজা খুলে বাহিরে যেতেই দূর্বত্ত্ব বুলবুল দ্রুত পালিয়ে যায়। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় গৃহবধূকে দেখতে পায়।

গৃহবধূর স্বামী আবু মাসুম দ্রুত স্থানীয় গ্রাম্য চিকিৎসক কাছে প্রাথমিক চিকিৎসা করেন তার স্ত্রীর। এঘটনায় ঐ গৃহবধূর স্বামী আবু মাসুম গত ২৩শে জুলাই বদলগাছী থানায় সফিউল ইসলাম বুলবুল এর বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। এবিষয়ে ভোক্তভোগী গৃহবধূ কবিতা পারভিন বলেন,প্রতিবেশী বুলবুল আমার সম্পর্কে চাচাতো শ্বশুর হয়।প্রায় আমাকে কুপ্রস্তাব দিতো বুলবুল, তাকে এই ধরনের বাজে কথা বলতে নিষেধ ও করেছি। তারপর ও সে আমাকে খারাপ প্রস্তাব দেয়। আমি তাকে গালিগালাজ করি।

চাচাতো শ্বশুরের কুপ্রস্তাব এ আমি রাজি না হাওয়ায় সে রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় আমার গোপন স্পর্শকাতর যায়গায় আঘাত করে। গৃহবধূর স্বামী জানান, আমার প্রতিবেশী চাচা সফিউল ইসলাম বুলবুল সে আমার বউকে বাজে কুপ্রস্তাব দেয়।আমার স্ত্রী বিষয়টি আমাকে জানালে আমি তাকে এই সব খারাপ ব্যবহার করতে নিষেধ করি। কিন্তু গত ১৯জুলাই সে গভীররাতে আমার বাড়ির জানালা কৌশলে খুলে ফেলে,ঘুমন্ত অবস্থায় আমার পাড়া সম্পর্কে ঐ চাচা বাঁশের কারুল দিয়ে এই বাজে জঘন্য কাজ করে।

আমার স্ত্রীর চিৎকার শুনে আমি আচমকা জেগে উঠে জানালার দিকে লাইটের আলোতে দেখি যে বুলবুল চলে যাচ্ছে। আমি বাড়ির দরজা খুলে তাকে ধরতে যেতে সে দ্রুত পালিয়ে যায়। এবিষয়ে প্রতিবেশী রিমা বলেন ঐ রাতে আমরা গৃহবধূর কষ্ট দেখেছি। অপরাধীকে আইনের আওতায় এনে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

স্থানীয় উজ্জ্বল হোসেন বলেন, অপরাধী যেই হোক আর যত প্রভাবশালী হোকনা কেন আমরা গ্রামবাসী অপরাধীর কঠিন শাস্তি দাবি করছি। এঘটনার বিষয়ে অভিযুক্ত সফিউল ইসলাম বুলবুল এর পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলতে চাইলে তারা কোন প্রকার কথা বলতে রাজি হয়নি। এবিষয়ে বদলগাছী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)আতিকুল ইসলাম বলেন, এঘটনায় অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানায় একটি মামলা হয়েছে।