পরিবেশ বাঁচান গেম খেলে

4
পরিবেশ বাঁচান গেম খেলে

‘মাই লাভলি প্লানেট’ নামের গেমটি অন্য সব গতানুগতিক স্মার্টফোন গেমের নয়। এটি এমন একটি গেম যেখানে গেমার ভার্চুয়ালভাবে গেমে একটি গাছ রোপণ করলে সত্যিকার পৃথিবীতেও একটি গাছ রোপণ করা হবে। অর্থাৎ ভার্চুয়াল জগতে আপনি গাছ লাগাবেন আর বাস্তব জগতে গাছ লাগাবে সেই গেমের ডেভেলপার কম্পানি। শুধু তাই নয়, গেমে যখন একজন গেমার সমুদ্রের আবর্জনা পরিষ্কার করবে তখন বাস্তবেও সমুদ্রের আবর্জনা পরিষ্কার হবে।

আবার গেমাররা যখন গেমে জীববৈচিত্র্য রক্ষায় কাজ করে তখন সত্যিকার অর্থেও বিপন্ন প্রাণীদের বাঁচাতে উদ্যোগ নেবে গেম কর্তৃপক্ষ।

Pop Ads

এই ধারণাটি নিয়ে ২০২১ সালে গেম বানিয়েছিলেন তরুণ উদ্যোক্তা ক্লিমেট। তাঁর সহযোগী হিসেবে ছিলেন ক্যান্ডি ক্রাশ গেমের এক সাবেক ডেভেলপারও। গেমটি মূলত একটি স্মার্টফোন গেম।

পরিবেশ রক্ষার উদ্যোগ হিসেবে এই গেম সাজানো হয়েছে। গেমটি ভার্টিক্যাল মোডে খেলতে হয়। প্লে স্টোর এবং অ্যাপলের অ্যাপ স্টোরে পাওয়া যাবে ‘গু খড়াবষু চষধহবঃ’ নামে। বর্তমানে প্লে স্টোর থেকে এক লাখবার ডাউনলোড হয়েছে।

বিনা মূল্যে ডাউনলোড করার পর গেমে একটি দ্বীপ দেখা যাবে। দ্বীপে রোপণ করতে হবে চারা বা বীজ। সেই বীজ থেকে ধীরে ধীরে গাছ হবে এবং গেমের লেভেল বাড়বে। তা ছাড়া ‘ক্ল্যাশ অব ক্ল্যান’ গেমের মতো এই গেমে প্রতি ঘণ্টায় কিছু কয়েন যুক্ত হবে। যেগুলো দিয়ে গেমে বীজসহ বিভিন্ন উপাদান কেনা যাবে।

এই কয়েনকে বলা হচ্ছে ‘এমএলসি’ বা ‘মাই লাভলি কয়েন’। গেমে অনলাইনে মাল্টিপ্লেয়ার মোডে খেলার অপশনও আছে। গেমে লেভেল বাড়ানোর জন্য ক্যান্ডি ক্রাশের মতোই একটি গেম খেলতে হয়।

গেমের মতো বাস্তব জগতে পরিবেশ রক্ষায় গেম নির্মাতারা যুক্ত হয়েছে কিছু এনজিও সংস্থার সঙ্গে। তারা গেমের মতোই গাছ রোপণ করবে, সমুদ্র পরিষ্কার করবে, বন বাঁচাতে উদ্যোগ নেবে। মূলত গেমের আয়ের ১৫ শতাংশ দেওয়া হয় এনজিওগুলোকে। তারা তখন বাস্তবেও গাছ লাগায়। গেমের আয় আসে বিজ্ঞাপন এবং ইন-অ্যাপ কেনাকাটা থেকে। তা ছাড়া আরেকটি বড় অংশ আসে মাই লাভলি কয়েন থেকে। এই এমএলসি এক ধরনের এনএফটি টোকেন। অর্থাৎ এখানে ব্লকচেইন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। টোকেনের মান গেমে খেলোয়াড় বৃদ্ধি এবং গেমে কেনাকাটার সঙ্গে বৃদ্ধি পায়। এখান থেকে আয়ের ৩০ শতাংশ ব্যয় করা হবে এনজিও সংস্থায়।

বৃক্ষরোপণের জন্য মাই লাভলি প্লানেটের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ‘ইডেন রিফোরেস্টেশন’, সমুদ্র পরিষ্কারে ‘প্লাস্টিক ব্যাংক’, প্রাণী সুরক্ষায় ‘প্রটেকশন সোসাইটি ফর এনিমেলস’-এর মতো এনজিওগুলো। এরই মধ্যে প্রায় ৭৭ হাজার গাছ রোপণ করেছে মাই লাভলি প্লানেট। গেমের রাজস্ব যে এনজিও সংস্থায় ব্যয় করা হচ্ছে তা দুই বছর পরপর তৃতীয় পক্ষ দ্বারা যাচাই করা হয়।

মাই লাভলি প্লানেট গেম ডেভেলপে ব্যবহার করা হয়েছে জনপ্রিয় ভিডিও গেম সফটওয়্যার ইউনিটি। পরিবেশবাদী মডেল এবং ইতিবাচক প্রভাবের জন্য ‘ইউনিটি ফর হিউম্যানিটি’ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে গেমটি। এরই মধ্যে প্রায় ৩০ হাজার গেমার এই গেমকে রেটিং দিয়েছে। বর্তমানে গেমটির রেটিং দাঁড়িয়েছে ৪.৭। তা ছাড়া গেম খেলে পরিবেশ সুরক্ষায় গাছ লাগাতে মাই লাভলি প্লানেটের ডিসকর্ড সার্ভারে যুক্ত হয়েছে ১২ হাজার গেমার।

লিংক : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.ImagineComp.ImagineSerie&hl=en_US [অ্যানড্রয়েড]

https://apps.apple.com/sa/app/my-lovely-planet/id1573748823?platform=iphone [আইওএস]