পাপুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে বাতিল হবে এমপি পদ : প্রধানমন্ত্রী

29
পাপুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে বাতিল হবে এমপি পদ প্রধানমন্ত্রী

সুপ্রভাত বগুড়া (জাতীয়): লক্ষ্মীপুর-২ আসনের এমপি কাজী শহীদ ইসলাম পাপুল অর্থ ও মানবপাচার, ভিসা বাণিজ্য ও ঘুষ লেনদেনের অভিযোগে কুয়েতের কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন। কুয়েতে নাগরিকত্বের অভিযোগ প্রমাণিত হলে পাপুলের এমপি পদ বাতিল হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (৮ জুলাই) জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে এ কথা বলেন তিনি। এর আগে মঙ্গলবার (৭ জুলাই) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় মন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন জানান, মানবপাচার ও মানি লন্ডারিংয়ের দায়ে বাংলাদেশি সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল কুয়েতে সিআইডির হাতে গ্রেফতার হলেও তার বিষয়ে বরাবর সাফাই গেয়েছেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এসএম আবুল কালাম।

এমনকি এই সাংসদ কুয়েতে আটক হওয়ার এক মাস পেরিয়ে গেলেও দেশটির সরকারের কাছ থেকে এ বিষয়ে কোনো উত্তর আদায় করতে পারেননি রাষ্ট্রদূত। পাপলুর অপরাধের সঙ্গে তার জড়িত থাকার কথা বিভিন্ন গণমাধ্যমে উঠে এসেছে। কুয়েত সরকারের কাছ থেকে অভিযোগ পেলে এই রাষ্ট্রদূতের বিরুদ্ধে তদন্ত করবে ঢাকা।

সাংসদ পাপুলকে গত ৬ জুন কুয়েতে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর থেকে তার বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। কুয়েতের দুই সরকারি কর্মকর্তা ও এক স্থানীয়কে ভিসা বাণিজ্যের জন্য বিপুল পরিমাণ ঘুষ দেওয়ার বিষয়টি পাপুল জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন।

৫০ লাখ কুয়েতি দিনারসহ (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৩৭ কোটি ৮৮ লাখ ৮৩ টাকা) পাপুলের পাঁচটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দের নির্দেশ দিয়েছে কুয়েতের কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

সাধারণ শ্রমিক হিসাবে কুয়েত গিয়ে বিশাল সাম্রাজ্য গড়া পাপুল ২০১৮ সালে লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পাপুলের মালিকানাধীন মারাফি কুয়েতিয়া গ্রুপে প্রায় ১৫ থেকে ২০ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশি কাজ করেন বলে কুয়েতে বাংলাদেশ কমিউনিটির ধারণা।