পুরুষের শুক্রাণুতেও মিলেছে করোনার উপস্থিতি !

সুপ্রভাত বগুড়া (স্বাস্থ্য-কণিকা): করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে এবার পুরুষের শুক্রাণুতে। তবে যৌন সম্পর্কের মাধ্যমে এই ভাইরাসের সংক্রমণ হবে কি না সেটি নিয়ে আরো গবেষণা প্রয়োজন বলে জানিয়েছে বিজ্ঞানীরা। বৃহস্পতিবার এমনটাই দাবি করেছেন চীনের বিজ্ঞানীরা।

ওই গবেষণায় চীনের শাংকিউ মিউনিসিপ্যাল হাসপাতালে গত জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসে চিকিৎসা নেয়া ১৫ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩৮ জন পুরুষের নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ছয় জনের শুক্রাণুতে করোনার উপস্থিতি পেয়েছেন চিকিৎসকরা, যার হার ১৬ শতাংশ।

Pop Ads

এদের এক-চতুর্থাংশই তখন মারাত্মক সংক্রমণের পর্যায়ে ও প্রায় ৯ শতাংশ সেরে ওঠার পর্যায়ে ছিলেন বলে গবেষকরা জানান। এমনকি তাদের প্রসাব ও মলেও এই ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ সংক্রান্ত গবেষণা প্রতিবেদনটি জার্নাল অব আমেরিকান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনে প্রকাশ করা হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান শুক্রবার এ খবর প্রকাশ করেছে। গবেষকরা বলছেন, যেহেতু স্বল্পপরিসরে এই গবেষণা চালানো হয়েছে, তাই এখনই বলা যাচ্ছে না যে, যৌন সম্পর্কের মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়ায় কিনা? এ জন্য আরো গবেষণা প্রয়োজন।

চীনা গবেষক দলের পক্ষ থেকে আরো বলা হয়েছে, যদি প্রমাণ হয় যৌন সম্পর্কের মাধ্যমে করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়, তা হলে এটি হবে এ মহামারির সবচেয়ে সংকটপূর্ণ দিক।

বেইজিংয়ে চাইনিজ পিপল লিবারেশন আর্মি জেনারেল হসপিটালের দিয়ানজেং লি ও তার সহকর্মীরা জানান, কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে এমনকি সেরে ওঠার পর্যায়েও পুরুষের বীর্যের মধ্যে আমরা সার্স-সিওভি ২-এর অস্তিত্ব পেয়েছি।

পুরুষের প্রজনন ব্যবস্থায় প্রতিস্থাপনে সক্ষম না হলেও ‘সেখানে পূর্ণ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা না থাকায় (প্রিভিলেজড ইমিউনিটি)’ ভাইরাসটি টিকে থাকছে বলে তারা মনে করছেন। তবে গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চে চীনে সামান্য পরিসরে করা গবেষণায় ১২ জন করোনা আক্রান্ত রোগীর শুক্রাণুতে ভাইরাসটির উপস্থিতি পাননি গবেষকরা।

যুক্তরাজ্যের শেফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যান্ড্রোলজির অধ্যাপক অ্যালান প্যাসি বলেন, ‘ভাইরাসের উপস্থিতি জানতে শুক্রাণু পরীক্ষার ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত সমস্যা থাকায় এ গবেষণাগুলো এখনই চূড়ান্ত হিসেবে দেখা উচিত নয়।

এ ছাড়া শুক্রাণুতে করোনার উপস্থিতি থাকলেও এটি সক্রিয় কিনা অথবা সংক্রমণের ঝুঁকি আছে কিনা, তা দেখা যায়নি।’ অ্যালান প্যাসি এও বলেন, তবে ভাইরাসটি কিছু পুরুষের শুক্রাণুতে পাওয়া গেলে আমাদের অবাক হওয়ার কিছু নেই, যেহেতু এটি ইবোলা ও জিকার মতো আরো অনেক ভাইরাসের ক্ষেত্রেও দেখা গেছে। সূত্র : সিএনএন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here