প্রাথমিক শিক্ষক মারা গেলে সন্তানের দায়িত্ব নেবে শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্ট

49
প্রাথমিক শিক্ষক মারা গেলে সন্তানের দায়িত্ব নেবে শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্ট

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চাকরিরত শিক্ষকের মৃত্যু হলে অপ্রাপ্ত-বয়স্ক সন্তানের লেখাপড়ার খরচ চালাতে গঠন করা হচ্ছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্ট। এছাড়া প্রতিবন্ধী বা বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন এবং তৃতীয় লিঙ্গের কোনো শিশু থাকলে তাদের লেখাপড়ার খরচও ট্রাস্টের পক্ষ থেকে দেয়া হবে।

বুধবার সংসদ ভবনে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ-সংক্রান্ত আইনের খসড়ায় চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। পরে সচিবালয়ে এ সভার বিস্তারিত তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, মূল বিষয় হল, চাকুরিরত অবস্থায় একজন শিক্ষকের মৃত্যু হলে তার অপ্রাপ্তবয়স্ক কোনো সন্তান থাকলে, প্রতিবন্ধী বা বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশু থাকলে, তৃতীয় লিঙ্গের কোনো শিশু থাকলে, তাদের লেখাপড়ার খরচ ট্রাস্টের পক্ষ থেকে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, সরকার একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করা হবে। এটি হবে একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা। ট্রাস্টের প্রধান কার্যালয় থাকবে ঢাকায়। সরকারের অনুমতি নিয়ে দেশের যে কোনো জায়গায় ট্রাস্টের শাখা বা কার্যালয় করা যাবে। এর পরিচালনায় থাকবে একটি ট্রাস্টি বোর্ড।

এই ট্রাস্ট পরিচালিত হবে ২১ সদস্যের একটি ট্রাস্টিবোর্ড এর মাধ্যমে, যার প্রধান হবেন চেয়ারম্যান। প্রাথমিক শিক্ষা বোর্ডের মহাপরিচালক পদাধিকার বলে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পাবেন। সদস্য সচিব হবেন মহাপরিচালকের মনোনীত একজন শিক্ষক। মনোনয়নের তারিখ থেকে ৩ বছরের জন্য ওই বোর্ডে থাকতে পারবেন তারা।

তিনি জানান, ব্যাংক-ঋণে এখন থেকে অস্থাবর সম্পত্তিও ইক্যুইটি হিসেবে রাখার বিধান রেখে সুরক্ষিত লেনদেন -অস্থাবর সম্পত্তি-আইন ২০২২-এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। কারও যদি স্থায়ী আমানত থাকে তার বিপরীতে, অনুপাত অনুযায়ী ঋণ নেয়া যাবে।

এছাড়া বন্ড, দামি গাড়ি, সোনা-রুপা, মেধাস্বত্ব বন্ধক রেখেও নেয়া যাবে ঋণ। এছাড়া বাংলাদেশের সঙ্গে ইরান ও মালদ্বীপের দ্বৈত করারোপ পরিহার ও রাজস্ব ফাঁকি রোধ সংক্রান্ত চুক্তির খসড়ায় অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।