বগুড়ার তৃনমূল আ. লীগের অনুপ্রেরণা “মন্জুরুল আলম মোহন”

247
বগুড়ার তৃনমূল আ. লীগের অনুপ্রেরণা "মন্জুরুল আলম মোহন" ছবি-সংগ্রহ

সুপ্রভাত বগুড়া (স্বাধীন মতামত): বাংলাদেশের তৃণমূল বিস্তৃত ঐতিহ্যবাহী ও গণমুখী রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগের বগুড়া জেলার একজন নিরহঙ্কারী সাদামাটা মানুষ যিনি ছাত্রজীবন থেকে মানুষের কল্যাণের আদর্শবোধ বুকে ধারণ করে বগুড়ার রাজনীতিতে এক অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে আছেন।

একজন মানুষের বড় সফলতা হলো, একটি অঞ্চলের আর্থ সামাজিক কাঠামো ও রাজনৈতিক দর্শনে মানুষের মধ্যে ব্যাপক পরিবর্তনে ভুমিকা রাখা। একই সঙ্গে উন্নয়নে, সমৃদ্ধিতে পরিবর্তনের সেই ধারা ধরে রাখা। বলিষ্ঠ নেতৃত্বই সেই সফলতার মূল চাবিকাঠি। আর সেই সফল মানুষটি হলেন, বগুড়ার মাটি ও মানুষের নেতা বলে খ্যাত জননেতা মন্জুরুল আলম মোহন। তিনি বগুড়ার জেলা আওয়ামী লীগের ১ নং যুগ্ম সাধারন সম্পাদক এবং বগুড়া জেলা যুবলীগের সাবেক সফল সভাপতি সেই সাথে বগুড়া জেলা ছাত্রলীগ এর দায়িত্ব পালন করেছেন অত্যন্ত সাংগঠনিক দক্ষতার সাথে সাবেক এই ছাত্রনেতা।

মন্জুরুল আলম মোহন একজন সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান এবং তৃণমূল রাজনীতি থেকে উঠে আসা একজন সফল সংগঠক। তার রাজনৈতিক দুরদর্শীতা এবং সাংগঠনিক দক্ষতা ও নেতৃত্বগুণাবলির ফলে তিনি জায়গা করে নিয়েছেন বগুড়াবাসীর হৃদয়ের মণিকোঠায়। আমজনতা তাকে ভালোবেসে ‘ যুবরাজ ’ বলেও সম্বোধন করেন। এমন অনন্য চলন, স্পষ্টবাদীতা, ভালোকে ভালো বলে পুরষ্কৃত করা,মন্দকে মন্দ বলে তিরষ্কার করার সৎ সাহস ধারণ করা, নিত্য গণমানুষের জন্য কল্যাণমুখী রাজনীতির চর্চা করা, সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের প্রতিভা এবং সার্বিক সাফল্যে আজ তিনি বগুড়া জেলার রাজনৈতিক অঙ্গনে একজন আদর্শিক ও অন্যায়ের সাথে আপোষহীন প্রতিবাদে সরব ব্যাক্তিত্ব ।

তিনি বর্তমানে বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগ এর যুগ্ম সাধারন সম্পাদক এর দায়িত্বে থাকা অবস্থায় করোনাকালীন দুযোর্গ মুহূর্তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনা বাস্তবায়নে বগুড়ার অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন আস্থার প্রতীক হয়ে।মানুষের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছানো থেকে শুরুকরে মাস্ক এবং হ্যান্ডসেনিটাইজার ও তাদের সাস্থসচেতন করতে নিরালস কাজ এবং দিকনির্দেশনা দিয়ে গেছেন নেতাকর্মী এবং সাধারন মানুষদের।

মন্জুরুল আলম মোহন এর এতো বিশেষণ, এতো আলোচনা, এতো সাফল্য। এগুলো তো একজন মানুষের জীবনে একদিনে অর্জিত হয় না। বিশেষ করে রাজনীতির মাঠে। যেখানে আলোচক- সমালোচক দুইপক্ষেরই আতশ কাচের নিচে থাকতে হয় সৎ সাহসী রাজনীতিবিদকে। এখানেই একজন মন্জুরুল আলম মোহন ব্যতিক্রম। তিনি রাজনীতিতে এসেছেন গণমানুষের পাশে থাকতে, তাদের সুখ-দুঃখের অংশীদার হতে। এক সময় রাজনৈতিকভাবে বগুড়ার মানুষকে চিনতো বিএনপির ঘাঁটি বলে।

বিশেষ করে বগুড়ার সদরে এবং জেলার অন্য উপজেলা গুলোতে বিরোধীদের পাল্লাই ভারী থাকতো। সেই ধারাকে পুরোপুরি আমূল পাল্টে দিতে একজন মন্জুরুল আলম মোহন রাজনীতির মাঠে দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে গেছেন। বিরোধী দলেও নানা মামলা হামলার স্বীকার হয়েছেন। বর্তমানে বগুড়া আওয়ামী লীগের উর্বর ভুমি বলেই পরিচিতি লাভ করেছে। তৃলমূলের রাজনীতিতে তার জনপ্রিয়তা কতোটা তা বগুড়ার গ্রামগঞ্জে ঘুরে এলে বোঝা যায়।

তিনি তৃণমূলে ঘুরে ঘুরে তাদের অন্তরের একজন হয়ে এই জনপ্রিয়তা ও সাধারণ মানুষের ভালোবাসা অর্জন করেছেন। সবসময় খোঁজ খবর রেখেছেন সাধারণ মানুষ, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের।বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করা দেশরত্ন শেখ হাসিনার কর্মী হয়ে রাজনৈতিক জীবনে তার পদচারণা।দেশের যেকোন দুর্যোগ কালীন মুহুর্তে নীবরে নিভৃতে তিনি মানবতার সেবায় সবসময় বগুড়ার মানুষের পাশে ছিলেন আত্মার আত্মিয় হয়ে।

বরাবরি তার পরিকল্পনা বগুড়ার সাধারণ জনগণের জন্য বড় পরিসরে কিছু করার।আর সেই লক্ষে তিনি তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সাথে সরাসরি সম্পর্কের সেতুবন্ধন স্থাপন করে কাজ করে চলেছেন একজন আলোকবর্তিকা হয়ে। সাধারন মানুষের ভালোবাসার প্রতিদান তিনি দিয়ে চলেছেন প্রতিনিয়ত। বগুড়া শহর ছাত্রলীগ এর সাবেক সাধারন সম্পাদক ছাত্রনেতা শেখ ফারহান আল অরছি বলেন একজন জনবান্ধব নেতা হিসেবে মন্জুরুল আলম মোহনের যে ঈর্শনীয় সাফল্য তা এক কথায় অনন্য ও অসাধারণ।