বগুড়ার কাহালু উপজেলার উলটে বিধবা বৃদ্ধ মা-বোনের বাড়ি-ঘর দখলের অপচেষ্টা!

44

বৃদ্ধ মাসহ সুবিধাদাতাকে মারপিট থানায় অভিযোগ !

সুপ্রভাত বগুড়া (রায়হানুল) : বগুড়ার কাহালু উপজেলার উলট গ্রামে  বিধবা মা ও নিজ বোনের বাড়ি-ঘর দখলের অপচেষ্টা চালানোর খবর পাওয়া গেছে এক পুত্রের বিরুদ্ধে। নিজ সম্পত্তিতে বসবাস করার ক্ষমতা না থাকায় বিভিন্নভাবে হয়রানির শিকার উলট গ্রামের মৃত হযরত আলীর বিধাব স্ত্রী খায়রুন বেওয়া (৭০) ও তার মেয়ে হাজেরা বেগম (৩৮) বিচারের দাবিতে দ্বারে দ্বারে ঘুরে ব্যর্থ হওয়ায় একই এলাকার মোঃ খলিলের পুত্র মাসুদ রানা মানবিক বিবেচনায় এগিয়ে আসায় তার বিরুদ্ধেও চলছে নানা অপতৎপরতা।

সেই সূত্র ধরে, পাওয়ার অফ এ্যাটোনি মূলে ৪৫ শতক জায়গার জমি ও বাড়ি-ঘর প্রাপ্ত হয়ে নির্যাতিতদের সুবিধা দিতে গিয়ে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে গত ২৪ আগষ্ট কাহালু থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ঐদিন হযরত আলীর পুত্র মাহবুবুর রহমান মামুন, আনসার আলীর পুত্র রেজাউল, মামুনের পুত্র সৌরভ, স্বাধীন, মামুনের স্ত্রী সখিনাদ্বয় লোহার রড ও লাঠিসোটা দিয়ে হাজেরা বেগম, তার মেয়ে মনি আক্তার, তার বৃদ্ধ মা খায়রুন বেওয়াকে  এলোপাতাড়ি মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

এসময় মাসুদ রানা ও প্রতিবেশি আতিকুল ইসলাম তাদের জীবন বঁচাতে এগিয়ে গেলে উভয়কেও একইভাবে মারপিট করে তাড়িয়ে দেয়। পরবর্তীতে তারা জীবন বাঁচাতে নিরাপদ আশ্রয় গ্রহণ করে এবং গুরুতর আহত বৃদ্ধ খায়রুন বেওয়াকে কাহালু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আহত অন্যান্যরাও প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করেন।

অভিযোগকারীর দাবি আসামীরা নিজ মাকে মারপিট করেই শুধু ক্ষান্ত হননি তারা নিজেরাই বাড়ি-ঘর ভাংচুড় করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির চেষ্টা করছে। তিনি অবিলম্বে প্রশাসনের সঠিক তদন্তের মাধ্যমে বৃদ্ধ ভুক্তভোগীর বাড়ি-ঘর ফিরিয়ে দিতে উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষের নেক প্রচেষ্টার দাবি করেছেন। অন্যদিকে আসামীরা বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।