বগুড়ার কৃতি সন্তান ম. আব্দুর রাজ্জাক স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পূনরায় সহ-সভাপতি নির্বাচিত

249
বগুড়ার কৃতি সন্তান ম. আব্দুর রাজ্জাক স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পূনরায় সহ-সভাপতি নির্বাচিত। ছবি-হেলাল

সুপ্রভাত বগুড়া (আবু সাঈদ হেলাল): বগুড়ার সারিয়াকান্দির কৃতি সন্তান, ডাকসুর সাবেক সদস্য ম. আব্দুর রাজ্জাক বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটিতে পূনরায় সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। সাবেক সফল এই ছাত্র নেতা বিগত কমিটিতেও সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

তাকে পুনরায় সহ-সভাপতি নির্বাচিত করায় বঙ্গবন্ধু কন্যা সফল রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম সহ নেতৃবৃন্দের প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনের লক্ষ্যে সংগঠনের কার্যক্রম আরো গতিশীল করতে তিনি দলীয় নেতাকর্মী, সারিয়াকান্দি- সোনাতলা এলাকাবাসীসহ বগুড়াবাসীর সার্বিক সহযোগিতা  ও দোয়া কামনা করেছেন।

ম. আব্দুর রাজ্জাক ছাত্রজীবনে বিপুল ভোটে ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ডাকসু) সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি সারিয়াকান্দি উপজেলার কুতুবপুর গ্রামের বাসিন্দা। ১৯৮১ সালে বগুড়া জেলা স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষা এবং ১৯৮৩ সালে রংপুর কারমাইকেল কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নিয়ে শিক্ষা বোর্ডে ২য় ও ৩য় স্থান অর্জন করেছেন। ১৯৮৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও ১৯৮৮ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন।

১৯৭৯ সালে স্কুল জীবনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে প্রবেশ করেন তিনি। ৮১ সালে রংপুর কারমাইকেল কলেজে পড়াকালীন ছাত্রলীগের সকল কর্মকাণ্ডে সক্রিয় ছিলেন। পরবর্তীতে ৮৩-৮৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালে সূর্যসেন হলের আবাসিক ছাত্র হিসেবে ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ডে তার সম্পৃক্ততা আরও বেড়ে যায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, কেন্দ্রীয় কমিটির গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সদস্য হিসেবে ডাকসু নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিপুল ভোটে সদস্য নির্বাচিত হন। প্রতিবছর দুই ঈদ সহ এলাকার অসহায় দরিদ্র মানুষের মাঝে শাড়ি-লুঙ্গি, শীতবস্ত্র, কম্বল ও দুস্থদের চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। ১/১১ সহ বিভিন্ন সময়ে বিরোধীপক্ষের নির্যাতন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যদের হাতে গ্রেফতার হয়ে কারাবরণ করেন তিনি। বিগত সকল জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের পক্ষে তিনি বলিষ্ট ভুমিকা পালন করেছেন।