বগুড়ায় দুই যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় চিকিৎসক গ্রেফতার, পলাতক দু’জনকেও খুজছে পুলিশ!

251

সুপ্রভাত বগুড়া (আবদুল ওহাব বগুড়া প্রতিনিধি): বগুড়ার ধুনটে রেকটিফাইড স্পিরিট খেয়ে দুই যুবকের মৃত্যু ও আরো দুই জন অসুস্থ হওয়ার ঘটনায় আশরাফুল ইসলাম লাল মিয়া (৫১) নামে এক হোমিও চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার ২৯ মে বিকেলে উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের ঈশ্বরঘাট গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত ওই চিকিৎসক ঈশ্বরঘাট গ্রামের সৈয়দ আলী ফকিরের ছেলে। উল্লেখ্য বুধবার ঈশ্বরঘাট গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে মাংস ব্যবসায়ী আল-আমিন (৩৫), একই গ্রামের আজিবর রহমানের ছেলে গার্মেন্টস শ্রমিক আব্দুল আলিম (৩০), মৃত মেজাদ প্রামানিকের ছেলে রেজাউল করিম (৩২)

ও হাঁসখালি গ্রামের মোজাম প্রামানিকের ছেলে লালন মিয়া (৩২) স্থানীয় সৈলাক হোমিও চিকিৎসালয় নামের প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক আশরাফুল ইসলাম লাল মিয়ার কাছ থেকে ৩ বোতল রেকটিফাইড স্পিরিট ক্রয় করে। তারা ওই রেকটিফাইড স্পিরিট খেয়ে বাড়ি যাওয়ার পর অসুস্থ হয়।

এক পর্যায়ে ওই দিন বিকেল ৫টায় আল-আমিন নিজ বাড়িতে এবং আব্দুল আলিম বৃহঃবার বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

অপর দিকে রেকটিফাইড স্পিরিট খেয়ে অসুস্থ রেজাউল করিম ও লালন মিয়া স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়ে আত্মগোপন করে। যা বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় ঝড় তোলে।
বিষয়টি অতি গুরুত্ব বহন করায় শুক্রবার বিকেলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঈশ্বরঘাট গ্রামের হোমিও চিকিৎসক আশরাফুল ইসলাম লাল মিয়াকে গ্রেফতার করে।

এসময় পুলিশ তার বাড়ি থেকে আরও ২৮ বোতল রেকটিফাইড স্পিরিট উদ্ধার করে।
ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা জানান, মদ্যপানে দুই যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় এসআই আকবর আলী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আসামী হিসেবে ওই হোমিও চিকিৎসককে গ্রেফতার করা হয়েছে।