বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়কের আদমদীঘি বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী ছাউনী ও টয়লেট ব্যবস্থা না থাকায় মারাত্মক ভোগান্তিতে যাত্রীরা

28
বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়কের আদমদীঘি বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী ছাউনী ও টয়লেট ব্যবস্থা না থাকায় মারাত্মক ভোগান্তিতে যাত্রীরা। ছবি-শিমুল

সুপ্রভাত বগুড়া (শিমুল  হাসান,আদমদীঘি, (বগুড়া), প্রতিনিধি): বগুড়া -নওগাঁ মহাসড়কের আদমদীঘি বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী ছাউনী ও টয়লেট ব্যবস্থা না থাকায় মারাত্মক ভোগান্তিতে পড়েছেন বাসের জন্য অপেক্ষামান নারী- পুরুষ যাত্রীরা। থানা মোড়ের যাত্রী ছাউনী ভেঙে ফেলায় এলোমেলো ভাবে সিএনজি অটোচার্জার ও অটোরিকশা রাখায় এখন দাঁড়িয়ে থাকাও কষ্টসাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ফলে বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টিতে ভিজে ও গরমকালে রোদের তাপ উপেক্ষা করে বাসের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে যাত্রীদের। জানাযায়, বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়কের আদমদীঘি সদরে প্রায় ২৫ বছর আগে ইটের পাকা ও উপজেলা পরিষদের সামনে প্রায় ১৫ বছর আগে টিনের দুটি পৃথক যাত্রীছাউনি নির্মাণ করা হয়। এসব ছাউনিতে অপেক্ষা করতেন বাসের যাত্রীরা। কাঙ্কিত বাস এলে উঠে যেতেন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ মাঝে মধ্যে তাদের সীমানার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চালালেও যাত্রী ছাউনী রেখে দিতেন। কিন্তু গত বছর দু’য়েক হলো উপজেলা পরিষদের সামনে টিনের যাত্রী ছাউনিটি ভেঙে নষ্ট হয়ে গেছে। আর সদরের পাকা যাত্রী ছাউনিটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের এক উচ্ছেদ অভিযানে ভেঙে ফেলেছে।

বর্তমানে যাত্রী ছাউনি ও তার আশেপাশের ফাঁকা জায়গায় মাটি কেটে ভরার করার পর কিছু স্থান দখল করে পুনরায় দোকানপাট স্থাপন করা হলেও যাত্রী ছাউনী নির্মানের কোন উদ্যোগ নেই। ফলে ছাউনীহীন স্ট্যান্ডে বাসের আশায় দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন যাত্রীরা। জরুরী ভিক্তিতে যাত্রী ছাউনির পাশাপাশি একটি টয়লেটের ব্যবস্থা প্রয়োজন বলে ভুক্তভোগীদের দাবী।

আদমদীঘি উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম খান রাজু সাংবাদিকদের জানান, পরিবেশগত কারনে যাত্রী ছাউনি নির্মানে কিছুটা বিলম্ব হলেও অল্পদিনের মধ্যে যাত্রী ছাউনি ও টয়লেট ব্যবস্থা করার পরিকল্পনা রয়েছে।