বগুড়ায় নানান আয়োজনে শ্রমিকলীগের ৫০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করলো যুব কমিটি

349

সু-প্রভাত বগুড়া (আবু সাঈদ হেলাল): বর্ণাঢ্য র‌্যালি, আলোচনা সভা, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ভাষা সৈনিকদের সংবর্ধনায় ১জন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ১জন ভাষা সৈনিক কে মরনোত্তার সম্মাননা প্রদান, ১জন সুবিধা বঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মান প্রদর্শন, প্রীতিভোজ, কেক কর্তন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সহ বিভিন্ন কর্মসুচির মধ্য দিয়ে জাতীয় শ্রমিকলীগের ৫০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করেছে জাতীয় শ্রমিকলীগ-যুব কমিটি বগুড়া জেলা শাখা।

গতকাল শনিবার সকালে শহরের তিনমাথা রেলগেট অস্থায়ী কার্যালয় থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি শহরের সাতমাথায় জেলা শ্রমিকলীগের র‌্যালিতে যোগদান করে। এরপর দুপুরে নেতার্মীদের সৌজন্যে প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়।

সন্ধ্যায় তিনমাথা রেলগেট এলাকায় সংগঠনের জেলা সভাপতি রাকিব উদ্দিন প্রাং সিজারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল মান্নান আকন্দ। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা শ্রমিকলীগের যুগ্ন সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল গফুর প্রাং, আব্দুল্লাহ আল মামুন মিলু, নাহারুল ইসলাম, ইশতিয়াক।

উক্ত অনুষ্ঠানে ভাষা সৈনিক মরহুম নুরুল হোসেন মোল্লা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুস সামাদ শামিমের পরিবারের হাতে সম্মাননা স্বারক তুলে দেয়া হয়। চারজন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা প্রদান ও ১জন সুবিধা বঞ্চিত বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মান প্রদর্শন করা হয়। সংবর্ধিত ৪জন বীর মুক্তিযোদ্ধা যথাক্রমে বীর মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলী প্রাং, বীর মুক্তিযোদ্ধা মেহের আলী তোতা, আলী আশরাফ চিশতী এবং রফিকুজ্জামান। এবং সুবিধা বঞ্চিত বীর মুক্তিযোদ্ধা মো:আব্দুল মতিন মন্ডলকে স্টেজে ডেকে নিয়ে সম্মান প্রদর্শন করা হয়।

সংগঠনের সাধারন সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম রহিতের সঞ্চালনায় সংবর্ধনা ও সম্মাননা শেষে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে কেক কর্তন করা হয়। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি ইমদাদুল হক ইমদাদ, সোহানুর রহমান শিমুল, নজরুল ইসলাম, আলী আক্কাছ, রাজু আহম্মেদ, যুগ্ন সম্পাদক রাকিব মাহমুদ রাখি, রাকিবুল হাসান সোহাগ, রায়হানুর রহমান রোহান, রবিউল ইসলাম রবি, সাংগাঠনিক সম্পাদক শেখ রাসেল, মাছুদুর রহমান মাছমু, শ্রী জিতেন কুমার, মেহেদী হাসান, গোলাম রব্বানি, রায়হান উদ্দিন পলাশ, মামুনুর রশিদ মামুন, ফরিদ এবং আল আমিন প্রমুখ সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। শেষে বিভিন্ন শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।