বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের নামে নাটক করছে-সাবেক এমপি লালু

305
বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের নামে নাটক করছে-সাবেক এমপি লালু

সুপ্রভাত বগুড়া (আবু সাঈদ হেলাল): বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাবেক এমপি মোঃ হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু বলেছেন, গণতন্ত্র এখন মুমূর্ষু অবস্থায় আছে। বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের নামে নাটক করছে। হাসিনা সরকার রাতে আধারে ভোট চুরি, ভোট ছিনতাই করে ক্ষমতায় থাকার জন্য ১/১১ দোসরদের সাঙ্গে হাত মিলিয়ে ক্ষমতায় এসে নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত¡াবধায়ক সরকার বাতিল করে। অতীতের সকল নির্বাচন বাতিল করে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে এবং একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন। এটাই একমাত্র সমাধান।

কোভিড বলেন আর যাই বলেন নির্বাচিত সরকার ছাড়া কোনো সমস্যারই সমাধান হবে না। আজকে আমাদের দুর্ভাগ্য, এখন যে নির্বাচন কমিশন আছে সেটা একটা ঠুটো জগন্নাথ। লজ্জাশরম বলতে কিছু নাই। একটা মানুষের লজ্জা শরম হায়া থাকে, এদের তাও নাই। তারা বলে নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। গণতন্ত্রের বাহন হলো নির্বাচন। নির্বাচন ছাড়া গণতন্ত্র হয় না। কিন্তু নির্বাচনকে তারা এতোই পরিত্যক্ত, অগ্রহণযোগ্য ও হেয় করে ফেলেছে। আমাদের নির্বাচন কমিশন বলে আওয়ামী লীগ জিতলেই নির্বাচন সুষ্ঠ! নির্বাচনের পরিবেশ কেমন ছিলো, ভোটার গেলো কি গেলো না সেটি বিবেচ্য নয়। আজকে জনগণের কাছে দায়বদ্ধ সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এটা হতে পারে শুধু নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে, যে সরকার জনগণের কাছে জবাবদিহি করবে।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদের উপ-নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে নির্বাচন বাতিল ও পুনরায় নির্বাচনের দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে গতকাল সোমবার সকালে বগুড়া জেলা বিএনপির আয়োজিত দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। লালু আরো বলেন, এই সরকারের অধীনে দেশ নিরাপদ নয়, দেশের মানুষ নিরাপদ নয়, তার প্রমাণ মা-বোনেরা এখন নিরাপদে চলাফেরা করতে পারে না। বিনা বিচারে হত্যা, এখানে তাদের মতের সাথে যারা একমত নয়, তাদের গুম করে নেয় অথবা হত্যা করা হয়।

তিনি বলেন, চাল, ডাল, পেঁয়াজ, আলুসহ নিত্য প্রয়োজনীয় সকল পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি সাধারণ নি¤œবিত্ত, মধ্যবিত্ত ও শ্রমজীবী মানুষকে চরম বিপাকে ফেলেছে। সরকারি দলের মদদপুষ্ট এক শ্রেণীর ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ও সরকারি ব্যবস্থপনার ব্যর্থতায় ও দুর্নীতির কারণে দ্রব্যমূল্য বেড়েই চলেছে। সাবেক এমপি লালু বলেন, আসুন আমরা শপথ গ্রহণ করি। এদেশের জনগণের অধিকার ভোটের অধিকার, স্বাধীনতার অধিকার ফিরিয়ে আনতে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন করতে হবে। আজকে কেউ কথা বলতে পারবে না, কেউ লিখতে পারবে না। সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে কিছু বলতে পারেব না।

এর চেয়ে বড় নির্যাতন নিপিড়ন ও স্বাধীনতা হরণ আর কি থাকতে পারে। এরা এখন সম্পূর্ণভাবে একটি কতৃত্ববাদী সরকারে পরিণত হয়েছে। এক নায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে। ভিন্নকথা বললেই মামলা। আমি সকল দল মত নির্বিশেষে সবাইকে আহবান জানাই, আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই ফ্যাসিস্ট একদলীয় সরকাকে সরিয়ে একটা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করি। বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল এর সভাপতিত্বে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কেএম খায়রুল বাশারের পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন আসন্ন বগুড়া পৌরসভার বিএনপি মনোনিত মেয়র প্রার্থী জেলা বিএনপি সাবেক সভাপতি ও আহŸায়ক কমিটির সদস্য রেজাউল করিম বাদশা, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আলী আজগর তালুকদার হেনা, লাভলী রহমান, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আহসানুল তৈয়ব জাকির, এম আর ইসলাম স্বাধীন, হামিদুল হক চৌধুরী হিরু, তৌহিদুল আলম মামুন, এনামুল কাদির এনাম, শেখ তাহা উদ্দিন নাইন, মাফতুন আহমেদ খান রুবেল।

আরো বক্তব্য রাখেন, বগুড়া সদর উজেলা বিএনপির আহŸায়ক এ্যাড. সোলাইমান আলী, শাজাহানপুর উজেলা বিএনপির আহŸায়ক আঃ হাকিম, গাবতলী উজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আসশাফ আলী, বগুড়া জেলা যুবদলের আহবায়ক খাদেমুল ইসলাম খাদেম, যুগ্ম আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা কৃষকদলের আহŸায়ক আকরাম হোসেন, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু হাসান, সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকী রিগ্যান, শ্রমিকদলের লিটন শেখ বাঘাসহ নেতৃবৃন্দ। খবর বিজ্ঞপ্তির।