বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আগামীকাল

50
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আগামীকাল।

সুপ্রভাত বগুড়া (জাতীয়): বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭১ তম বছরে পদার্পন করতে যাচ্ছে। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন জন্ম নেওয়া দলটির ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হবে আগামীকাল।

পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী রোজ গার্ডেনে আওয়ামী মুসলিম লীগ নামে এই দলের আত্মপ্রকাশ ঘটলেও পরে তা শুধু আওয়ামী লীগ নাম নিয়ে অসাম্প্রদায়িক সংগঠন হিসেবে বিকাশ লাভ করে। জন্মের পর থেকে বেশির ভাগ সময়ই গেছে লড়াই-সংগ্রামে। হত্যা, ক্যু, ষড়যন্ত্র—সবই দেখেছে দলটি।

বর্তমানে করোনা ভাইরাসের মহামারিতে বিশ্ববাসী দিশেহারা। এর ছোবল এসে হানা দিয়েছে বাংলাদেশেও তাই, পুর্ব বাংলার স্বাধীনতার রুপকার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এই দিনটিকে উদযাপন করতে এবার ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ নিয়েছে।

প্রতিষ্ঠার শুরুতে দলটির নেতৃত্বে ছিলেন মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও শামসুল হক। স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় ও আওয়ামী লীগের ইতিহাস একসূত্রে গাঁথা। ১৯৫২–এর ভাষা আন্দোলন, ১৯৬৬ সালের ছয় দফা আন্দোলন, ১৯৬৯–এর গণ-অভ্যুত্থান, ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ—সব অর্জনই হয়েছে এই দলের নেতৃত্বে।

স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ যখন অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রামে এগিয়ে চলছিল, ঠিক তখনই আঘাত হানে ঘাতকেরা। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। ১৯৮১ সালে বিদেশে অবস্থানকালে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত করেন নেতা–কর্মীরা।

এরপর ওই বছর ১৭ মে তিনি দেশে ফিরে আসেন এবং দুঃসময়ে আওয়ামী লীগের হাল ধরেন। এরপর থেকে তিনি শক্ত হাতে দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। ১৯৯৬ সালে ২১ বছর পর শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে। মাঝখানে এক মেয়াদ ক্ষমতার বাইরে থাকা অবস্থায় শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়।

তিনি প্রাণে বেঁচে গেলেও দলের অনেক নেতা নিহত ও আহত হন। এরপর ২০০৯ সাল থেকে টানা তিন মেয়াদে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায়, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগের টানা ১২ বছরের শাসনামলে দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন দেশ-বিদেশে আলোচিত হয়েছে।

মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে। বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। মহাকাশে নিজস্ব স্যাটেলাইট প্রেরণ করা হয়েছে। কৃষি ও খাদ্য উৎপাদনে সাফল্য এসেছে। জঙ্গি দমনে সাফল্য সারা বিশ্বে আলোচিত। তবে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে বিএনপিসহ বড় বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দলের বর্জন এবং অর্ধেকের বেশি আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টি সমালোচিত হয়েছে।

এবারের কর্মসূচি : প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আগামীকাল ২৩ জুন রাত একটি বিশেষ ওয়েবিনারের আয়োজন করবে আওয়ামী লীগ। ‘গণমানুষের দল আওয়ামী লীগ’ শীর্ষক এই ওয়েবিনার রাত ৮.৩০ মিনিটে দলের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ (https://www.facebook.com/awamileague.1949/)ও ইউটিউব চ্যানেলে (https://www.youtube.com/user/myalbd/) সরাসরি দেখা যাবে।

এছাড়াও এছাড়াও দৈনিক ইত্তেফাক, বিডিনিউজ২৪, দৈনিক সমকাল, জাগোনিউজ২৪, বাংলানিউজ২৪, যুগান্তর এবং সময় টিভির ফেসবুক পেজ এবং বিজয় টিভির পর্দায় সরাসরি প্রচারিত হবে এই অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে অনলাইনে যুক্ত হবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন এমপি,

সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আআমস আরেফিন সিদ্দিক এবং জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক অজয় দাশগুপ্ত। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করবেন সুভাষ সিংহ রায়।