বিএনপি সমর্থক আইনজীবীরা আদালতে পুলিশি নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন

51
বিএনপি সমর্থক আইনজীবীরা আদালতে পুলিশি নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পুলিশের লাঠিচার্জ ও নির্যাতনের ঘটনার বিচার দাবি করে প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বিএনপির প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ও সম্পাদক প্রার্থী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। এর আগে বুধবার ঘটে যাওয়া আইনজীবী ও সাংবাদিকদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ ও নির্যাতনের বর্ণনা দিয়েছেন তারা।

প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) সকাল সোয়া ৯টায় এজলাসে আসন গ্রহণ করেন আপিল বিভাগের ৮ বিচারপতি। এ সময় বুধবার ঘটে যাওয়া পুলিশের হামলা ও মামলার কথা তুলে ধরে আইনজীবীদের নিরাপত্তা চান সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী। প্রধান বিচারপতিকে সম্বোধন করে ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, আমরা আপনার আদালতের আইনজীবী। আপনি আমাদের অভিভাবক।

আমরা কী এমন অপরাধ করেছি যে পুলিশ আইনজীবীদের নির্যাতন করল। এ থেকে নারী আইনজীবীরাও রেহাই পাননি। আমাদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। বার ভবনে আমাদের কক্ষগুলো লক করে দেওয়া হয়েছে। এ কারণে আমরা আপনাদের কাছে এসেছি। ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, আমি নিজেও পুলিশের নির্যাতনের শিকার হয়েছি, ভালো করে হাঁটতে পারছি না।

বুধবার মিলনায়তনের ভেতরে আইনজীবীদের পায়ের নিচে ফেলে নির্যাতন করেছে পুলিশ। সাংবাদিক ও নারী আইনজীবীদেরও লাঠিচার্জ করা হয়েছে। এসময় বিএনপির আইনজীবীদের উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি বলেন, আপনারা কোর্ট অফিসার। আমরা আপনাদের সম্মান করি। এখন আদালতে মামলা শুনব।

আপনারা দুইজন (ব্যারিস্টার খোকন ও কাজল) বেলা ১১টার সময় খাস কামরায় আসুন। আপনাদের কথা শোনা হবে। প্রয়োজনে অ্যাটর্নি জেনারেলকেও ডেকে আনব। এদিকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আদালত প্রাঙ্গণে বৃহস্পতিবারও বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নারী পুলিশ ও আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নসহ (এপিবিএন) পাঁচ শতাধিক পুলিশ সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে মোতায়েন থাকবে।