বেনাপোল নামাজ গ্রামে ৪০০ রোজাদারকে ইফতার করালেন- তরুন সমাজ সেবক কামরুজ্জামান বাবলু

81

সুপ্রভাত বগুড়া (কামাল হোসেন বিশেষ প্রতিনিধি): যশোরের বেনাপোল নামাজ গ্রামের কৃতী সন্তান কামরুজ্জামান বাবলু বারবার মানুষের সেবায় এগিয়ে এসেছেন বিশ্ব মহামারী করোনা ভাইরাস ঘরবন্দী মানুষের জন্য প্রায় ৪০০ পরিবারের মধ্য ইফতারির খিচুড়ি পৌঁছে দিয়েছেন বিশিষ্ট সি এন্ড এফ ব্যবসায়ী,তরুন সমাজ সেবক, যুবলীগ নেতা,কে. বি এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী কামরুজ্জামান (বাবলু) শুক্রবার (৮মে) দুপুরে পর তার নিজ এলাকা নামাজ গ্রামে ভুনা খিচুরি পৌঁছে দেন।

এভাবেই আর্তমানবতার সেবায় বারবার এগিয়ে আসছে ৪০০ ঘরবন্দি পরিবারের জন্য খিচুড়ি প্যাকেট করেন এবং তার নিজ দায়িত্বে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেন আর্তমানবতার সেবায় নিজেকে বিলিয়ে দেওয়ার মধ্যেই রয়েছে জীবনের স্বার্থকতা।

জীবনের উদ্দেশ্য শুধু নিজেকে সুখী করা নয় বরং উদ্দেশ্য হওয়া উচিত অন্যকে সুখী করা। কথায় আছে পৃথিবীতে দান করে কিংবা মানবসেবা করে কেউ কখনো গরীব হয়নি। বরং গরীব মানসিকতার মানুষরাই কখনো কারো জন্য কিছু করতে পারেনি।

পৃথিবীতে সেই মানুষগুলো সবচেয়ে সুখের কাছে যেতে পেরেছে যারা নিজেদেরকে আর্তমানবতার সেবায় বিলিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছে। নিজের জন্য নয় সমাজ ও মানুষের মাঝে সেবা করা সবচেয়ে বড় আনন্দ। কথাগুলো বললেন কামরুজ্জামান বাবলু কামরুজ্জামান বাবলু বলেন, আমি অনেক কষ্টে দুঃখে বড় হয়েছি।

অভাবের সাথে সংগ্রাম করেছি। আজ আর আমার অভাব নেই। আল্লায় আমাকে যা দিয়েছে আমার চাওয়ার চেয়ে অধিক দিয়েছে। আমার গ্রামের মানুষ না খেয়ে আছে এই সংবাদে আমার হৃদয় কেঁদে উঠে।

আমার যতটুকু তওফিক আছে ততটুুক তাদের মাঝে বিতরন করেছি। আর এরপর ও করোনার দুর্যোগ যদি না কাটে আমি আবারও আমার গ্রামের মানুষের প্রতি সাহয্যর হাত বাড়িয়ে দিব। আমার শেষ স্বম্বল থাকতে একটি লোককে ও না খেয়ে মরতে দিব না।