“প্রধানমন্ত্রী বা যাই হই না কেনো,শিক্ষকের মর্যাদা সবার উপরে”

49
"প্রধানমন্ত্রী বা যাই হই না কেনো,শিক্ষকের মর্যাদা সবার উপরে"। ফাইল-ছবি

সুপ্রভাত বগুড়া (জাতীয়): প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একাদশ জাতীয় সংসদের ৮ম অধিবেশনে সাম্প্রতিক সময়ে মারা যাওয়া সংসদ সদস্যসহ সমাজের বিশিষ্ট জনদের স্মরণে শোক প্রস্তাবে শেখ হাসিনা বলেন, অধ্যাপক আনিসুজ্জামান সরাসরি আমার শিক্ষক ছিলেন। 

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭১ সালে যে সমস্ত শহীদ বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করা হয়, তিনি তার মধ্যে বেঁচে যাওয়া একজন বিশিষ্ট ব্যক্তি ছিলেন। বাংলা একাডেমির দায়িত্বে ছিলেন। আমি প্রধানমন্ত্রী বা যা-ই হই না কেনো, তিনি শিক্ষক শিক্ষকই। তাকে আমি সবসময় শিক্ষকের মর্যাদাই দিয়েছি।

তিনি যখন অসুস্থ তখন চেষ্টা করেছি সবসময় তার খোঁজ রাখতে। চেষ্টা করেছি তার চিকিৎসার সার্বিক খোঁজ খবর নিতে। সবরকম ব্যবস্থাও নিয়েছিলাম তার চিকিৎসার জন্য। এছাড়া শেখ হাসিনা বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে সারা পৃথিবীতে আজ অচলাবস্থা।

যদিও মানুষ সুস্থ হচ্ছে তবুও আতঙ্ক বিরাজ করছে সবার মধ্যেই। অস্ত্র-অর্থ-সম্পদ-প্রভাব কোনো কিছুই যেনো ঠেকাতে পারছে না করোনা ভাইরাসকে। জরুরী এই পরিস্থিতিতে নিজের অপারগতা তুলে ধরে শেখ হাসিনা জানান- ‘পার্লামেন্টের কেউ মারা গেলে সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় একটা জানাজা করি আমরা।

আমাদের অনেক সদস্য মারা গেলেন। আমরা তাদের সেই জানাজাটা পড়তে পারলাম না। আমরা তাদেরকে দেখতেও যেতে পারিনি। এমনকি এই পরিস্থিতিতে সেই পরিবারগুলোর কোনো সদস্যের সাথেও আমরা দেখা করে সান্ত্বনা-সমবেদনাটুকুও দিতে পারলাম না। এটাই কষ্ট।