মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি, রাষ্ট্র বিরোধী প্রচার-প্রচারনা ও সাম্প্রদায়িক উসকানিমুলক বক্তব্যের অভিযোগে মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারী গ্রেফতার!

117
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি, রাষ্ট্র বিরোধী প্রচার-প্রচারনা ও সাম্প্রদায়িক উসকানিমুলক বক্তব্যের অভিযোগে মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারী গ্রেফতার! ছবি-ফেসবুক
সুপ্রভাত বগুড়া (দৌলত জামান): মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি, রাষ্ট্র বিরোধী প্রচার-প্রচারনা ও সাম্প্রদায়িক উসকানিমুলক বক্তব্য ও ফেসবুক স্ট্যাটাসের জন্য শেরপুর থানা পুলিশ কর্তৃক মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারী গ্রেফতার। মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারী বগুড়া জেলার নন্দীগ্রাম থানার ধুন্দার গ্রামের আব্দুল কুদ্দুসের পুত্র। কট্টর মৌলবাদী আব্দুর রহমান শেরপুর উপজেলা কুসুম্বী ইউনিয়নের অন্তর্গত বাগড়া কলোনী জামে মসজিদের পেশ ঈমাম। মসজিদে ঈমামতি ও ওয়াজ মাহফিল করাই তার পেশা। তিনি জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের একজন কট্টর সমর্থক।
তিনি কারনে অকারনে সরকারের বিরুদ্ধাচরণে সোচ্চার ছিলেন। বিশেষ করে মাওলানা দেলোয়ার হোসেন সাঈদি মানবতা বিরোধী অপরাধের কারণে যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত হলে তিনি আরো ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেন। বিভিন্ন সময়ে তার কথা-বার্তা, চাল-চলন ও বক্তব্যে সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমনাত্নক, আপত্তিকর ও মানহানীকর বক্তব্য প্রচার করতে থাকে। বিভিন্ন মসজিদ ও ইসলামী জালসায় সরকারের বিরুদ্ধে উস্কানীমূলক বক্তব্যের পাশাপাশি তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডি মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারী এবং Mawlana Abdur Rahman Didary থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে এবং সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয় এমন বিভিন্ন ধরনের আপত্তিকর ও মানহানীকর পোস্ট করে। Mawlana Abdur Rahman Didary আইডি হতে সে পোস্ট করে “বিড়ালের মত ৫০০ বছর বাঁচতে চাই না। সিংহের মত ১ ঘন্টা বাঁচতে চাই”।
একই ফেসবুক আইডি থেকে গত ০৫/০৪/২০২০ খ্রিঃ তারিখ বেলা ১১.৩৪ ঘটিকায় নিজের একটি ছবি পোস্ট করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে শিরোনাম দেয় যে, “এই ব্যায়াদব মুনাফিক মহিলা শুরুতেই কোরআন সুন্নাহ বিরোধী কাজ করেছে। মহামারী সংক্রান্ত হাদিস বীশ্ব নবী জনাবে মোহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সাঃ বলেছেন যে শহরে এমন রোগ আসবে। ঐ শহরের কেউ বাহিরে যাবে না। আবার বাহিরের কেউ ঐ শহরে প্রবেশ করবে না। তাহলে সরকার কোরআন সুন্নাহ মানলেন না। আর কিছু সরকারী কুকুর আলেম ফতুয়া দিচ্ছে, জামায়াতে নামাজ পরা যাবে না, মসজিদ বন্ধ করে দেও। এই আলেম সমাজকে আওয়ামীলীগের দালালদের মহামারী করোনা দিয়ে শেষ করে দাও ইয়া আল্লাহ।” একই আইডি থেকে গত ০৬/০৪/২০২০ খ্রিঃ তারিখ দুপুর ০১.৫৬ ঘটিকায় নিজের একটি ছবি পোস্ট করে শিরোনাম দেয় যে, “সরকার কি চায় দেশের মানুষ মরে যাক??
আওয়ামীলীগ সরকারের জনগণ থাকলেই কি আর না থাকলেই বা কি যায় আসে”। ০৭/০৪/২০২০ খ্রিঃ তারিখ সন্ধ্যা ০৭.২২ ঘটিকায় একই ভাবে নিজের আর একটি ছবি পোস্ট করে শিরোনাম দেয় যে, “শেখ হাসিনা ও শেখ হাসিনার আশেপাশের ইসলাম বিরোধী কিছু মানুষের জন্য আজ করোনা ভাইরাস বাংলাদেশে এসেছে।” একইভাবে ১৩/০৪/২০২০ তারিখ রাত্রি ০৮.৪০ ঘটিকায় নিজের আর একটি ছবি পোস্ট করে শিরোনাম দেয় যে, “চাল চুরি দেখলেই বোঝা যায় আওয়ামীলীগ চোরের দালাল। আর এই দলের প্রধানকে আগে হাত কেটে দেওয়া হোক। তারপর পাতি নেতাদেরও দেওয়া হোক। তাহলে করোনা বন্ধ হবে। নাহলে এই আওয়ামীলীগের জন্য আল্লাহ তায়ালা করোনা বাজেট করে রেখেছেন। এদেরকে শেষ করে দেওয়ার জন্য।”
একইভাবে ১৮/০৪/২০২০ খ্রিঃ তারিখ বেলা ১২.৫৮ ঘটিকায় মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি ছবি পোস্ট করিয়া শিরোনাম দেয় যে, “আপনি সারাদিন খেয়ে কাজ পান না। সব সময় নামাজ যেন মসজিদে না হয়। না পরে। মসজিদ বন্ধ করার পায়তারা। তুই কবে হেদায়েত হবি। আল্লাহর ধ্বংশ অপেক্ষা করছে”। গত ২১/১০/২০১৯ খ্রিঃ তারিখ তার Mawlana Abdur Rahman Didary আইডি থেকে স্ট্যাটাস দেয় যে, “পুলিশ নামটা এখন অভিশপ্ত। এরা ইসলামের দুষমন। নবী করিম সাঃ এর দুষমন। সাহস থাকলে কমেন্ট করেন।” এছাড়া বিভিন্ন তারিখ ও সময়ে “এটা কোন মানুষের আচারন হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী মরলে জানাজা নছিব হবে না। অপেক্ষায় থাক।” ইত্যাদি উস্কানীমূলক প্রচার-প্রচারনা করতে থাকে।
মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারী তার ব্যক্তিগত ফেসবুকে এইসব আপত্তিকর ও উস্কানীমূলক প্রচার-প্রচারনা বিভিন্ন স্থানের লোকজনের দৃষ্টিতে আসলে শেরপুর উপজেলার ১নং কুসুম্বী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ জুলফিকার আলী@সঞ্জুর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানোর প্রচেষ্টা শুরু করে। তিনি বিষয়টি বিভিন্ন মাধ্যমে মাওলানা আব্দুর রহমানের দৃষ্টিতে আনার চেষ্টা করলে মাওলানা আব্দুর রহমান তার ফেসবুক পোস্ট থেকে কিছু অতি আপত্তিকর পোস্ট মুছে ফেললেও কিছু রেখে দেয়। কেননা তিনি ঘোষনা করেছেন, “বিড়ালের মত ৫০০ বছর বাঁচতে চাই না। সিংহের মত ১ ঘন্টা বাঁচতে চাই”। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উক্ত সাধারন সম্পাদক উপায়ান্তর না দেখে বাগড়া কলোনী জামে মসজিদে গিয়ে এলাকার মুসল্লী ও মসজিদের কমিটির সভাপতি-সাধারন সম্পাদককে জানিয়ে থানায় মাওলানা আব্দুর রহমানের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের করেন।
ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ জুলফিকার আলী@সঞ্জুর নিকট থেকে ১৮/০৭/২০২০ খ্রিঃ রাত্রি ১২.০৫ ঘটিকার এজাহার পেয়ে বগুড়ার পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আলী আশরাফ ভুঞা বিপিএম (বার) স্যারের নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেরপুর শেরপুর সার্কেল মোঃ গাজিউর রহমানের নেতৃত্বে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান, পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত ) মোঃ আবুল কালাম আজাদ ও এসআই বাচ্চু বিশ্বাসসহ শেরপুর থানা পুলিশের একটি চৌকস টিম তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে রাতেই মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারীকে বাগড়া কলোনী এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।
গ্রেফতারকালে তার হেফাজত থেকে একটি স্যামফনি এন্ড্রোয়েট মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার করে। পুলিশ তার মোবাইল ফোনে থাকা ফেসবুক আইডি মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারী এবং Mawlana Abdur Rahman Didary পর্যালোচনা করে তার দেওয়া উল্লেখিত পোস্ট গুলির প্রাথমিক সত্যতা খুঁজে পায়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায় যে মাওলানা সাঈদীকে যাবজ্জীবন কারা দন্ড দেওয়ায় ক্ষোভ থেকে সে এ স্ট্যাটাসগুলো দিয়েছিল। শনিবার মাওলানা আব্দুর রহমান দিদারীকে বিজ্ঞ আদালতে উপস্থাপন করে ০৭ দিনের পুলিশ রিমান্ডের আবেদন করা হবে।