মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের বিষয়ে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন

103

সুপ্রভাত বগুড়া (জাতীয়): বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের বিষয়ে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তারই ধারাবাহিকতায় জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কাউন্সিলকে ভিডিও কনফারেন্স গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী।

বুধবার বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে এই ভিডিও কনফারেন্স শুরু হয়। জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের বিরূপ প্রভাব থেকে দেশের সাধারণ মানুষের জানমাল বাঁচাতে সরকারি কর্মকর্তাদের পাশাপাশি দলীয় নেতাকর্মীদের সক্রিয়ভাবে কাজ করতে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিন গণভবনে বসেই শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে সার্বক্ষণিকভাবে মনিটরিং করছেন। দুর্যোগ মোকাবেলায় ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী-সচিব ও ডিসিদের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা এবং নজর রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের কারণে যেন বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি না হয় সেজন্য দেশবাসীর প্রতি দোয়া কামনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঘুর্ণিঝড় আম্ফানের কারণে আজ বুধবার (২০ মে) সকাল ৬টা থেকে মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে দেখাতে বলা হয়েছে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত। আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আম্ফান বুধবার সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে ৫৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে,

কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে ৫৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা বন্দর থেকে ৩৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা বন্দর থেকে ৪১০ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছিল।