মার্কিন কবি লুইস গ্লিক সাহিত্যে নোবেল পেলেন

191

সুপ্রভাত বগুড়া (আন্তর্জাতিক): এ বছর সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেলেন ৭৪ বছর বয়সী মার্কিন কবি লুইস গ্লিক। সুইডিশ অ্যাকাডেমির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গ্লিককে এই পুরস্কার দেয়া হয়েছে তার সহজ কাব্যিক উপস্থাপনের জন্য, যা ব্যক্তির অস্বিত্বকে সর্বজনীন করে তোলে। সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী ১১৭তম লেখক হিসেবে নাম লেখালেন লুইস গ্লিক।

১৯৪৩ সালে নিউইয়র্কে জন্মগ্রহণ করেন লুইস গ্লিক। ১৯৬৮ সালে ফার্স্টবর্ন সাহিত্যের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু করেন লুইস গ্লিক। এরপর খুব দ্রুতই আমেরিকান কনটেম্পরারি লিটারেচারের নামকরা কবি হিসেবে জায়গা করে নেন। লেখালেখি ছাড়াও কানেকটিকাটের ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজির অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

১৯৯৩ সালে দা ওয়াইল্ড আইরিস কাব্যগ্রন্থের জন্য পুলিৎজার এবং ২০১৪ সালে ন্যাশনাল বুক অ্যাওয়ার্ডের মত নামী খেতাবে ভূষিত হয়েছেন গ্লিক। ইংরেজি ছাড়াও স্প্যানিশ, জার্মান, সুইডিশ ভাষাতেও তার অনেক রচনা রয়েছে। আগামী ১০ ডিসেম্বর সুইডেনের স্টকহোমে আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেবে নোবেল কমিটি। সাহিত্যের এই নোবেল জয়ী পুরস্কারের অংশ হিসেবে ১০ মিলিয়ন সুইডিশ ক্রোন পাবেন।

শুক্রবার নরওয়ের রাজধানী অসলো থেকে নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটি শান্তিতে এবং সোমবার দ্য রয়্যাল ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অর্থনীতিতে নোবেলজয়ী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নাম প্রকাশ করবে। যৌন কেলেঙ্কারির জেরে ২০১৮ সালে সাহিত্যের নোবেল স্থগিত রাখা হযেছিল। সুইডিশ একাডেমির এক সদস্যের যৌন নিপীড়নের ঘটনা ফাঁস হওয়ার পর সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার জয়ী বাছাই কমিটি থেকে পদত্যাগ করেন বেশ কয়েকজন সদস্য।

এরপর কমিটিতে ব্যাপক রদ-বদল আনার পর ২০১৯ সালে একসাথে দুই বছরের নোবেলজয়ীর নাম ঘোষণা করে সুইডিশ একাডেমি। ২০১৮ সালে জন্য পোলিশ লেখক ওলগা টোকারচুক এবং পরের বছরের জন্য অস্ট্রিয়ার লেখক পেটার হান্টক্যর সেই পুরস্কার পান।