শাজাহানপুরে একরাতে দুই বাড়িতে অগ্নিকান্ড, সব হারিয়ে নিঃস্ব পরিবার !

76
শাজাহানপুরে একরাতে দুই বাড়িতে অগ্নিকান্ড, সব হারিয়ে নিঃস্ব পরিবার ! ছবি-আবদুল ওহাব

সুপ্রভাত বগুড়া ( আবদুল ওহাব, শাজাহানপুর বগুড়া প্রতিনিধি): বগুড়ার শাজাহানপুরে এক রাতে দু’টি বাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে সম্পুর্ণ ভস্মীভূত হয়েছে দুটি বাড়িই। একটি হল উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের রহিমাবাদ গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মৃত আব্দুল হালিম এর স্ত্রী আকতারা বেগম এর বাড়ি এবং অপরটি হল কাঁটাবাড়িয়া গ্রামের আবদুর রহমানের ছেলে রফিকুল ইসলামের বাড়ি।

বৃহঃবার ২ জুলাই পরিবারগুলো জানায় শেষ রাতে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।মুক্তিযোদ্ধার পরিবার অভিযোগ করেছেন, বাড়ির মূল গেটের বাহিরে লক করে ঘড়ে আগুন লাগিয়ে দেয়া হয়েছে। অপরদিকে বৈদ্যুতিক সর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে জানিয়েছেন রফিকুল ইসলাম।

মুক্তিযোদ্ধা মৃত আব্দুল হালিমের দ্বিতীয় স্ত্রী আসমা বেগম জানান, ছয় বছর আগে স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে পাশাপাশি দুই বাড়িতে তারা দুই স্ত্রী বসবাস করেন। প্রথম পক্ষের বড় ছেলে আতাউর রহমান কুমিল্লা সেনানিবাসে বেসামরিক চাকরি করেন। বুধবার রাত সাড়ে তিনটার দিকে আগুনের তাপে ঘুম ভেংগে গেলে দেখতে পাান প্রথম স্ত্রীর বাড়ি আগুনে পুড়তে যাচ্ছে।

গেট খুলে তাঁরা বের হতে চাইলেও বাইরে লক করা থাকায় বের হতে পারেননি। তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে তারা ফায়ার সার্ভিসে ফোন করে। সংবাদ পেয়ে বগুড়া ফায়ার সার্ভিসের দল ঘটনাস্থলে পৌছার পুর্বেই আগুনের লেলিহান শিখা সবকিছু পুড়ে ছাড়কাড় করে দিয়ে যায়।

দুই ঘর ও সকল আসবাবপত্র পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে যায়। নিঃস্ব হয়ে যায় মুক্তিযোদ্ধার বিধবা স্ত্রী। প্রথম স্ত্রী আকতারা বেগম জানান, শত্রুতা করে তার বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে। ছেলেকে খবর দেয়া হয়েছে। ছেলে আসলে আইনের আশ্রয় নেয়া হবে।

অপরদিকে একই রাতে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে লাগা আগুনে বাড়ি ঘড় সহ সকল আসবাবপত্র পুড়ে ভষ্মীভুত হয়েছে কাঁটাবাড়িয়া গ্রামে আব্দুর রহমানের ছেলে রফিকুল ইসলামের বাড়ি।

রফিকুল ইসলাম জানান, রাতে স্ত্রী সন্তানাদী নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত আড়াইটার দিকে আগুনের তাপে তার ঘুম ভেংগে যায়। এসময় তিনি ঘরে আগুন জ্বলতে দেখে চিৎকার দিয়ে স্ত্রী, সন্তান নিয়ে ঘর থেকে বের হয়ে যান। তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেও ব্যার্খ হয়।

আগুন তার নিজ ধর্ম যথাযথভাবে পালন করে। ভস্মীভূত হয়ে যায় পুরো বাড়ি। পড়নের কাপড় ছাড়া বাড়ির কোন কিছুই পোড়ার বাকি নেই। টিভি, ফ্রিজ সহ চার ঘরের সমস্ত আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ দুটি পরিবার জানিয়েছেন, তাদের প্রায় পাচ লক্ষাধিক টাকার মত ক্ষতি হয়েছে। পথে বসিয়েছে দুটি পরিবারই। শাজাহানপুর থানার ওসি আজিম উদ্দীন জানান, আগুন লাগার খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে আগুন লাগিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটে থাকলে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।