শাজাহানপুরে দলিল লেখকদের কর্মবিরতি, কারন জানাতে সাংবাদিকদের সামনে অপারগতা প্রকাশ

শাজাহানপুরে দলিল লেখকদের কর্মবিরতি, কারন জানাতে সাংবাদিকদের সামনে অপারগতা প্রকাশ। ছবি-ওহাব

সুপ্রভাত বগুড়া (আবদুল ওহাব শাজাহানপুর, বগুড়া প্রতিনিধি): একদিকে দলিল লেখকদের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ অপরদিকে দলিল লেখকদের কর্মবিরতি। এই দুই এর সংমিশ্রনে বগুড়ার শাজাহানপুর সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে দু’সপ্তাহ যাবত কোন দলিল রেজিষ্ট্রি হচ্ছেনা। এমন অচলাবস্থার কারনে সোমবার ৬ জুলাইও উপজেলা সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে জমি বিক্রেতা এবং ক্রেতা সাধারণ চরম দুর্ভোগে পড়ে বাড়ি ফিরে যেতে দেখাগেছে।

তবে রেজিষ্ট্রি অফিসের এই অচলাবস্থা নিরসন এবং দলিল লেখকদের কর্মবিরতির কারন জানার জন্য সাব-রেজিষ্ট্রার রিপন চন্দ্র মন্ডল সোমবার ৬ জুলাই দুপুরে দলিল লেখকদের সাথে মত বিনিময় সভার আয়োজন করেন। এসময় দলিল লেখকগন সহ উপজেলার গণ মাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু এ সভায় সাংবাদিকগন উপস্থিত থাকায় তাদের সামনে কর্মবিরতির কারন বলা যাবেনা বলে জানিয়েছেন দলিল লেখক সমিতির নেতৃবৃন্দ।

Pop Ads

সংগত কারনে প্রশ্ন উঠেছে সরকারী নীতিমালা বাস্তবায়নের দাবী হতে হবে প্রকাশ্যে। বিন্তু আন্দর মহলে দাবীগুলো কি এবং কেন ? তবে তারা জানিয়েছেন, একই পরিবারের লোকজন যেমন এক সাথে মিলেমিশে থাকে তেমনি করে দলিল লেখকদের সাথে সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের লোকজনের মিলে মিশে থাকতে হবে এবং সাব রেজিষ্ট্রারের কক্ষে গিয়ে দেখা করার সুযোগ দিতে হবে।

এসময় সাব-রেজিষ্ট্রার রিপন চন্দ্র মন্ডল সঠিকভাবে জমির কাগজপত্র উপস্থাপন ও একান্ত প্রয়োজনে দেখা করার সুযোগ দেয়ার আশ্বাস প্রদান করলেও সাংবাদিকগন সভায় উপস্থিত থাকায় কর্মবিরতি প্রত্যাহার না করে আগামী বৃহঃবার ৯ জুলাই আবারও সাব রেজিষ্ট্রারের সাথে একান্ত বৈঠকে বসার তারিখ ঘোষনা করেন। সভায় ঘোষনা করা হয়, ওইদিন আলোচনা ফলপ্রসু না হলে আন্দোলন চলবে এবং এই সাব রেজিষ্ট্রার থাকাকালীন তারা দলিল কার্যক্রম বিরতি বা কর্মবিরতি অব্যহত থাকবে।

এদিকে জমি দলিল করতে না পেরে ফেরত যাওয়া লোকজন জানিয়েছেন, অহেতুক এই কর্ম বিরতির কারনে তারা দলিল লেখকদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন। এছাড়াও দলিল লেখনীতে ও বিবিধ কারনে অতিরিক্ত অর্থ হাতিয়ে নেয়ারও অভিযোগ করেছেন। এবিষয়ে জানতে চাইলে শাজাহানপুরে অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা সাব-রেজিষ্ট্রার রিপন চন্দ্র মন্ডল জানান, দলিল লেখকগন জমির কাগজ পত্র সঠিকতা যাচাই ছাড়াই অনেক সময় দলিল উপস্থাপন করেন।

এসব অনিয়মের কারনে দলিল ফেরত দিলে তার বিরুদ্ধে অসৌজন্য মূলক আচরণের অভিযোগ তোলা হয়। যা আইন পরিপন্থি। অপরদিকে সাব রেজিষ্টারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ তুলে গত রোববার থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে দলিল লেখক সমিতি শাজাহানপুর উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। ফলে দুর-দুরান্ত থেকে আসা জমি দাতা ও জমি গ্রহীতাগণ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। উল্লেখ্য, শাজাহানপুর সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে সপ্তাহে রোববার ও সোমবার দলিল রেজিষ্ট্রি হয়ে আসছে। কিন্তু দলিল লেখকগণের কর্মবিরতির কারণে সরকারের রাজস্ব হারানো সহ ক্ষতির মুখে পড়েছেন উপজেলার সাধারণ মানুষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here