শাজাহানপুরে সচেতনতার অভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, নেই মাস্কের ব্যবহার!

133
শাজাহানপুরে সচেতনতার অভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, নেই মাস্কের ব্যবহার!। ছবি-আবদুল ওহাব

সুপ্রভাত বগুড়া (আবদুল ওহাব, শাজাহানপুর বগুড়া প্রতিনিধি): করোনা ভাইরাসে সারাদেশ যখন উত্তাল। বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা। সেই মুহুর্তে বগুড়ার শাজাহানপুরে জনগনের অসচেতনতা চরম আকার ধারণ করেছে। উপজেলার হাট-বাজার, বাসষ্ট্যন্ড, হোটেল রেস্তোরা সহ কোথাও মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্য বিধি ও সামাজিক দুরত্ব।

এমনকি জনসমাগম স্থানগুলোতেও মাস্ক বিহীন চলাচল করছে সাধারন জনগন। তথাপি দৃষ্টি পড়ছেনা প্রশাসনের। চরম এই অসচেতনতার ফলে উপজেলায় দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন। এভাবে অসচেতনতার দাবানল চলতে থাকলে এ উপজেলায় করোনা মহামারী আকার ধারন করতে পারে।

আজ মঙ্গলবার ৯ জুন উপজেলার আড়িয়াবাজার, দুবলাগাড়ী, মাঝিড়া বন্দর, বনানী, রাণীরহাট, বীরগ্রাম, কামারপাড়া হাট, নয়মাইল হাট, ওমরদীঘি, টেংগামাগুর, গোহাইল, জমাদারবাজার, বি-বøক বাজার, খরণা বাজার, বাসষ্ট্যান্ড সহ বিভিন্ন হাটবাজার ও জনসমাগম স্থানগুলোতে এমন চিত্র দেখাগেছে।

অসচেতন ও মাস্কবিহীন এসব লোকজনকে মাস্ক ব্যবহার না করার কারন জানতে চাইলে তারা নানা অজুহাত তুলে ধরেন। দোকানীরা বলেন, “কে শোনে কার কথা। মরার যখন হুকুম হবে তখন যেতেই হবে। এসব মেনে কি হবে”। উপজেলার আড়িয়াবাজার ও দুবলাগাড়ী বাজারে কেহ মাস্ক ব্যবহারের কথা বললে তার উপরই দোকানী ও ক্রেতারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে।

বলেন,“আল্লাহর উপরে কারো হাত নেই, যা হবার হবেই”। শুধু তাই নয়, এমনি অসচেতনতা ও জনসমাগম স্থানে মানুষের গা ঘেষে চলাচলে করছে লোকজন। ফলে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ।

করোনার শুরুতে বাজার স্থানান্তর সহ সামাজিক দুরত্ব মানতে বাধ্য করায় মানুষের মাঝে সতর্কতা ছিল। কিন্তু বর্তমানে এর কিছুই মানা হচ্ছেনা। এভাবে স্বাস্থবিধি অমান্য ও দেশের আইনের প্রতি এমন অবহেলা এখানে চরম আকার ধারন করেছে।

এছাড়া কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধে মাস্ক ব্যবহারের ওপর সরকারের কঠোর নির্দেশনা থাকলেও এ উপজেলায় তা মানা হচ্ছে না। তবে আশেপাশের উপজেলায় মাস্ক ব্যবহার না করায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা সহ প্রশাসন কঠোর অবস্থানে গেলেও শাজাহানপুরের চিত্র ভিন্ন।

এখানে নেই তদারকি, নেই অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা। ফলে নীরবে হু হু করে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। এসব কারনে প্রশাসনের এমন অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন উপজেলার সচেতন মানুষ।

কয়েক দিনেই উপজেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬০ জন অতিক্রম করেছে। এভাবে জনগনের অবাধ চলাচল, স্বাস্থ্যবিধি মানতে বাধ্য না করা ও সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করতে না পারলে দু’একদিনের মধ্যেই করোনা সংক্রমণের সংখ্যা শতকের ঘড় অতিক্রম করবে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মর্কতা ডাঃ মোঃ মোতারব হোসেন বলেন, গত দুই দিনেই ১৫ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছে। তাই স্বাস্থ্য সচেতন ও বিধি-নিষেধ মানা না হলে এর ভয়াবহতা দ্রæত বৃদ্ধি পাবে।

এদিকে হাট-বাজার ও জনসমাগমে স্বাস্থ্য বিধি, মাস্ক এর ব্যবহার ও সামাজিক দুরত্ব মেনে চলতে বাধ্য করতে প্রশাসন কেন ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা বা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করছেনা এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুদা পারভীন বলেন, মানুষকে সচেতন ও সতর্ক করা হচ্ছে। যার যার অবস্থান থেকে নিজ দায়িত্বে সবাইকে মেনে চলতে হবে।