শিশু দেবরকে মুরগীর মাংস খাওয়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে হত্যা করলো ভাবী !

159
শিশু দেবরকে মুরগীর মাংস খাওয়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে হত্যা করলো ভাবী !

শিশু দেবর লাবিব হোসেনকে (৪) মুরগীর মাংস খাওয়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে ভাবী রিমা আক্তার (১৮)। জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার সাতনা গ্রামের এ ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে নিজ ভাড়ি থেকে রিমা আক্তারকে আটক করা হয়। নিহত শিশু লাবিব হোসেন পাঁচবিবি উপজেলার সাতানা গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে। গ্রেপ্তারকৃত রিমা আক্তার শিশুটির আপন বড় ভাইয়ের স্ত্রী।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানান যায়, প্রায় ৯ মাস আগে সাতানা গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে মেফতাউল হাসানের সঙ্গে রিমা আক্তারের বিবাহ হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে পুত্রবধূ ও শ্বশুর-শাশুড়ির ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। তারই জেরে মঙ্গলবার সকালে মুরগীর মাংস খাওয়ানোর কথা বলে শাশুড়ির কাছ থেকে শিশু লাবিবকে ডেকে নিয়ে ঘরের মধ্যে শ্বাসরোধে হত্যার পর বিছানায় শুইয়ে রাখেন ভাবী রিমা আক্তার।

এদিকে, শিশু লাবিবকে কোথাও দেখতে না পেয়ে পুত্রবধূর ঘরে ঢুকে নিজ সন্তানের মরদেহ দেখতে পান শিশুটির মা। বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা।পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব জানান, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং এ ঘটনায় ভাবি রিমা আক্তারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওসি বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করেছেন। পারিবারিক কলহের জেরে শিশুটিকে তার ভাবী হত্যা করে থাকতে পারেন বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।