সচেতন হওয়া প্রয়োজন, সবচেয়ে বেশি প্রতারণার ঘটনা ঘটছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে !!

29

সুপ্রভাত বগুড়া (স্বাধীন মতামত): বর্তমান সময়ে ফেসবুক সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সবচেয়ে বেশি প্রতারণার ঘটনা ঘটছে। দৈনিক সুপ্রভাত বগুড়া’র পাঠকদের জন্য নিন্মলিখিত ক্ষেত্রে সতকর্তা অবলম্বন করার পরামর্শ রইলো।

পাশ পার্টিঃ এসএসসির রেজাল্ট হয়ে গেছে। অনেকে খারাপ রেজাল্ট করে দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে বসে আছেন। একদল ফেক ও সুযোগসন্ধানী ফেসবুক ব্যবহারকারি আপনার দিকে ওৎ পেতে বসে আছে। বিভিন্ন গ্রুপ খুলে আপনাকে পাশ করিয়ে দিবে বা রেজাল্ট বাড়িয়ে দিবে বলে টাকা পয়সা নিচ্ছে। টাকা দিয়ে যদি রেজাল্ট ঠিক করানো যেতো তাহলে ফেল করা কেউ থাকতো না।

চাকরিদাতাঃ বিভিন্ন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সেজে আপনাকে চাকরি দিবে বলে রসের রসের কথা বলে অগ্রীম টাকা চাইবে। বিভিন্ন অখ্যাত কোম্পানিতে চাকরির বিজ্ঞাপন দিয়ে এডভান্স টাকা নিবে। এডভান্স টাকা দিলেন মানেই সুন্দর একটা বিপদেে পরে গেলেন। চাকরি তে পাবেন ই না, টাকা তুলতে গিয়ে খাজনার চেয়ে বাজনা বেশি হয়ে যাবে।

অনলাইন ব্যবসাঃ অনলাইনে বিভিন্ন পেজ খুলে সুন্দর ডিজাইনের ড্রেস দেখিয়ে আপনার নিকট হতে এডভান্স নিয়ে ব্লক করে দিবে। কেনরে ভাই লকডাউন না থাকাকালে মার্কেটে গিয়ে দেখে শুনে কিনে পারেন না? তারা কোথা ছবি সংগ্রহ করে আপনাকে দেখাচ্ছে সেটা জানেন? তবে এতো বাটপারের ভীড়ে কিছু ব্যবসায়ীরা বিশ্বস্ততা অর্জন করেছে। খুব সাবধান। বিশ্বাসযোগ্য নয় এমন কারো সাথে অনলাইনে কিনবেন না।

যোগাযোগ মাধ্যমঃ ফেসবুকে, টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের সুন্দর সুন্দর ছবি পোস্ট করবেন। আর সেটা দিয়ে ফেক এ্যাকাউন্ট খুলবে না তার নিশ্চয়তা কে দিবে? আপনার নিজে অথবা যে পারে তাকে দিয়ে ফেসবুকে নিরাপত্তা বলয় শক্ত করে দিন। আইডি আপনার রক্ষা করার দায়িত্ব আপনার।

অনলাইনে সাহায্য চাওয়াঃ বিভিন্ন রক্তমাখা ছবি, হাসপাতালে টাকা ছাড়া বাবা মায়ের লাশ দিচ্ছে না ছাড়াও বিভিন্ন ইনিয়ে বিনিয়ে আবেদনময়ী কথাবার্তা বলে আপনার কঠোর মনকে নরম করে ফেলবে। টাকা দিবেন তো ধরা খাবেন।

গ্রুপে_সাহায্য_কারসাজিঃ অমুক/তমুক গ্রুপে বন্ধু বান্ধবীর সাহায্য চাওয়া পোস্টের টাকাগুলো কার কাছে দিচ্ছেন তার হিসাব রেখেছেন? ফেসবুক বন্ধু মানেই বন্ধু না। হিসাব করে টাকা পয়সা লেনদেন করুন।

প্লাজমাদাতাঃ রক্তদাতার পাশাপাশি ইদানিং প্রচুর প্লাজমা দাতাও পাওয়া যাচ্ছে। আপনি রক্ত/প্লাজমা চাওয়ার সাথে সাথে একদল আপনাকে প্লাজমা দেয়ার কথা বলে গাড়ি ভাড়া নেই এই নেই সেই বলে টাকা চাইবে। আপনি ও বিপদে পড়ে সংগে সংগে বিকাশে টাকা পাঠাবেন। কাম সারছে! আপনি তার আইডি ই আর খুজে পাবেন না।

পাসওয়ার্ড/পিননাম্বার পার্টিঃ অমুক কোম্পানি থেকে মেসেজ/ফোন দিচ্ছে আপনার আইডি লক করে দিবে, আপনার ফাঁসি দিয়ে দিবে এই সেই বললেই যাচাই বাছাই ছাড়া গোপন নাম্বার দিবেন না। ভাইরে একটু কষ্ট করে কাস্টমার কেয়ারে যান।

ভূয়া ডাক্তার পার্টিঃ পাহাড় পর্বত থেকে গাছ এনে আপনার ভগ্ন স্বাস্থ্য বাড়ানো-কমানো, লম্বাকে খাটো, খাটোকে লম্বা, সাদাকে কালো, কালোকে সাদা, আপনার বেবি হবে না এমন কোন চিকিৎসা নেই এরা পারেন না। এরা পৃথিবীর সর্বরোগের ঔষধ দেয়। এদের থেকে দূরে থাকুন।

এছাড়াও জীনের বাদশা, এয়ারপোর্টে, কুরিয়ার সার্ভিস অফিসে আপনার কোটি কোটি টাকার মাল আটকে আছে ভং চং অনেক কথাবার্তা বলে লোভ দেখিয়েও আপনাকে প্রতারিত করতে পারে। আরো কত রকমের যে প্রতারণা রয়েছে বলে শেষ করা যাবে না।

আমাদের মত এতো বিশ্বাসপ্রবণ ও বোকা জাতি বিশ্বের কোথাও আছে কিনা আমরা জানি না। বিশ্বাস করুন ফেসবুক যা হয় তার আশি ভাগই মিথ্যা। আমরা নিজের বাপ মায়ের চেয়ে এসব প্রতারকদের বেশি বিশ্বাব করি। যা বলছি বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে বলছি।

প্রবাদে আছে, গরীবের কথা বাসি হলে ফলে।
এরপর সকল সিদ্ধান্ত আপনার, শুনলে শুনবেন; না শুনলে না শুনুন।