সব মিলিয়ে টাইগারদের ১০ দিনের অনুশীলন শেষ হচ্ছে আজ

81
সব মিলিয়ে টাইগারদের ১০ দিনের অনুশীলন শেষ হচ্ছে আজ ছবি-সংগ্রহ

সুপ্রভাত বগুড়া (খেলা-ধুলা): করোনাভাইরাসের সৃষ্ট পরিস্থিতির মধ্যে দিনকয়েক আগে মাঠের অনুশীলনে ফিরেছে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

এরই ধারাবাহিকতায় ক্রিকেটারদের অনুরোধে তাদের ব্যক্তিগত অনুশীলনের মেয়াদ আরও দুই দিন বাড়ানো হয়েছিল। সব মিলিয়ে টাইগারদের ১০ দিনের অনুশীলন শেষ হচ্ছে আজ।

মহামারি করোনার কারণে ১২৩ দিন বন্ধ ছিল জাতীয় ক্রিকেট। তবে গত ১৯ জুলাই (রোববার) টাইগার ক্রিকেটাররা ব্যক্তিগত অনুশীলনে মাঠে ফেরে।

প্রাথমিকভাবে ৮ দিনের জন্য অনুশীলনের এই উদ্যোগটি নেওয়া হয়েছিল। শেষ হওয়ার কথা ছিল রোববার (২৬ জুলাই)।

কিন্তু খেলোয়াড়দের অনুরোধে বিসিবির পক্ষ থেকে আরও দুই দিন বাড়ানো হয় চলমান অনুশীলন ক্যাম্পের মেয়াদ।

বিসিবি থেকে জানানো হয়, সোম ও মঙ্গলবার (২৭ ও ২৮ জুলাই) তারা অনুশীলন করতে পারবেন। টাইগারদের বর্ধিত এ অনুশীলন চলে শুধুমাত্র ঢাকার মিরপুরে শের-এ-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

সেই অনুশীলনও আজকের পর আর থাকছে না।দেশের ৫টি ভেন্যুতে ১৩ জন ক্রিকেটার আউটডোর অনুশীলনের এই সুযোগটি গ্রহণ করেছেন। অতিরিক্ত সময়ের প্রথম দিন ওপেনার এনামুল যোগ দেওয়ায় এখন সেই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে।

তবে শুধুমাত্র দৌড়, জিম ও ইনডোর ব্যাটিংয়েই সীমাবদ্ধ রাখা হয়েছে এই কার্যক্রম।

এই অনুশীলনের জন্য নিরপত্তার যে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তাতে সন্তুষ্ট হয়ে মুশফিকুর রহিমের মতো সিনিয়র খেলোয়াড়রা ঈদের পর স্বাস্থ্য সুরক্ষার প্রোটোকল মেনে গ্রুপ অনুশীলন শুরুর প্রস্তাব দিয়েছেন।

এ দিকে ঈদের ছুটির পর আরও অধিক সংখ্যক ক্রিকেটার ব্যক্তিগত অনুশীলনে সামিল হতে পারেন বলে ইঙ্গিত দিয়েছে বিসিবি। আগস্টের মধ্যভাগ থেকে কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরুর চিন্তাভাবনা চলছে।

উল্লেখ্য, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাতিল হওয়ায় চলতি বছরের অক্টোবরে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজটি খেলতে চায় বাংলাদেশ। এজন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বোর্ড।

করোনা ভাইরাসের এই মাহামারির কারণে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের ১৪টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ বাতিল হয়েছে।

সেই সঙ্গে বাতিল হয়েছে আইসিসি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের ৭টি টেস্ট ম্যাচও। অবশ্য সবগুলো ম্যাচই ভবিষ্যতে সুবিধাজনক সময়ে পুনরায় আয়োজনের সুযোগ আছে।