সামরিক অভ্যুত্থান বিরুদ্ধে প্রতিবাদ চলাকালে আবারো নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ৯ জন নিহত

48
সামরিক অভ্যুত্থান বিরুদ্ধে প্রতিবাদ চলাকালে আবারো নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ৯ জন নিহত

সুপ্রভাত বগুড়া (আন্তর্জাতিক): আবারো রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সাক্ষী হলো মিয়ানমার। বুধবার মিয়ানামারে সামরিক অভ্যুত্থান বিরোধীদের প্রতিবাদ চলাকালে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে অন্তত নয় জন নিহত হয়েছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে এমন তথ্য দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। বুধবার স্থানীয়দের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম শহরে বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে সরাসরি গুলি ছুড়েছে নিরাপত্তাবাহিনী।

রাজপথেনামা বিক্ষোভকারীদের দমাতে কাঁদানে গ্যাস, রাবার বুলেট ও স্টান গ্রেনেড ছোঁড়ে পুলিশ। এতে ২ জন নিহত হয়েছে। এনিয়ে সেনা বিরোধী বিক্ষোভে প্রাণ গেল ২৩ জনের। এদিকে, গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা ও অং সান সু চিকে মুক্তি দিতে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট ‘আসিয়ানের’ মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানানোর একদিন পরই এই নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিবর্ষণে হতাহতের এই ঘটনা ঘটল।

বুধবারও সু চিসহ শীর্ষ নেতাদের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ হয়েছে ইয়াঙ্গুন, মান্দালেসহ গুরুত্বপূর্ণ সব শহরে। এ বিক্ষোভ দমাতে হামলা চালায় পুলিশ। এরআগে, মঙ্গলবার মিয়ানমার পরিস্থিতি নিয়ে জান্তা সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে ভার্চুয়ালি জরুরি বৈঠকে বসে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট- আসিয়ান।

এতে মিয়ানমারের গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা ও অবিলম্বে অং সান সু চির মুক্তির আহ্বান জানানো হয়। পাশাপাশি সংকট নিরসনে অভ্যন্তরীণ সমাধানের পথ খুঁজতে মিয়ানমারকে আহ্বান জানায় আসিয়ান মন্ত্রীরা। গত রোববার পুলিশের গুলিতে মারা যায় ১৮ বিক্ষোভকারী। গ্রেপ্তার হন প্রায় পাঁচশো মানুষ। এ ঘটনায় উদ্বেগ ও নিন্দা জানায় বিশ্ব সম্প্রদায়।