স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে প্রজ্বলিত হয়েছে ল্যাম্পপোস্ট

66
স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে প্রজ্বলিত হয়েছে ল্যাম্পপোস্ট

জাতির বহুল প্রত্যাশিত স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে পরীক্ষামূলকভাবে প্রজ্বলিত করা হয়েছে ল্যাম্পপোস্ট। শনিবার ঘড়ির কাটায় ঠিক সন্ধ্যা ৬টায় সেতুর মাওয়া প্রান্তে জ্বালানো হয় এই স্ট্রিট লাইট। এর ফলে আলো জ্বললো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ল্যাম্পপোস্টগুলোতে। শনিবার ৬টায় প্রথমে সেতুর ১২ নম্বর স্প্যানের ল্যাম্পপোস্টগুলোতে আলো জ্বালানো হয় বলে জানিয়েছেন পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আবদুল কাদের।

তিনি জানান, চার লেন সেতুর পশ্চিম পাশে প্রথম বাতি জ্বলে ওঠে। এরপর পূর্ব পাশের বাতি জ্বালিয়ে দেয়া হয়। বাতি জ্বালানোর মুহূর্তে পদ্মা সেতুর কর্মীদের মধ্যে এক বিশেষ আবেগ ও অনুভূতি লক্ষ্য করা যায়। আজই প্রথমবারের মতো সেতুর ল্যাম্পপোস্ট প্রজ্বলিত হলো।

প্রকৌশলীরা জানান, পদ্মা সেতুর স্ট্রিটলাইটগুলো এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে, সেখানে ক্যাবলগুলো এমনভাবে সেট করা হয়েছে যে, সবগুলো লাইট কিন্তু কখনও একসঙ্গে নিভে যাবে না। কখন অন্ধকারও হবে না। কখনও যদি দুই একটি বাতিতে সমস্যা হয়, তাহলে বিকল্প লাইনে বাতি জ্বলবে। সেতু সবসময়ই আলোকিত থাকবে। সেতুতে ৪২৫টি ল্যাম্পপোস্ট আগেই বসানো হয়েছে।

এখন ক্যাবল টেনে সেট করার পর বাতি জ্বালানোর প্রক্রিয়া করলেন তারা। এই বাতি জ্বালানোর পর তা দেখতে উৎসাহি মানুষ সেতুর আশে-পাশে ভিড় জমান। তারা দূর থেকেই পদ্মা সেতুর আলো দেখে অভিভূত হয়েছেন।প্রকৌশলীরা আরো জানান, ২০২১ সালের ২৫ নভেম্বর মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সেতুর ভায়াডাক্টে প্রথম ল্যাম্পপোস্ট বসানোর কাজ শুরু হয়।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এই সেতুতে মোট ৪১৫টি ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করা হয়। এর মধ্যে মূল সেতুতে ৩২৮টি, জাজিরা প্রান্তের ভায়াডাক্টে ৪৬টি, মাওয়া প্রান্তের ভায়াডাক্টে ৪১টি ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। মূল সেতুতে ল্যাম্পপোস্ট বসানোর কাজ শেষ হয় চলতি বছেরের ১৮ এপ্রিল। -বাসস।