হেলমেট ভেবে ছোট্ট মেয়ে মাথায় পড়ে প্রেশার কুকার, অতঃপর.. যত বিপত্তি !!

22
হেলমেট ভেবে ছোট্ট মেয়ে মাথায় পড়ে প্রেশার কুকার, অতঃপর.. যত বিপত্তি !! ছবি-সংগ্রহ

সুপ্রভাত বগুড়া ডেস্ক: বাবাকে হেলমেট পরতে দেখে এক বছরের প্রিয়াংশী বালার সাধ হল হেলমেট পরবে সে। নজর গেল মায়ের রান্নাঘরে পড়ে থাকা প্রেসার কুকারের দিকে। ব্যস! হেলমেট ভেবে সেই প্রেসার কুকার মাথায় পরে ফেলল।

আর সেটি বের করা নিয়েই শুরু হল বিপত্তি। শুক্রবার সকালে ভারতের গুজরাটের রাজকোটে এই ঘটনায় হইচই কাণ্ড শুরু হয়ে যায়। উপায় ভেবে কূলকিনারা করতে হিমশিম খেতে হয় রাজকোটের স্যার টি হাসপাতালের ডাক্তারদের।

হাসপাতাল সূত্রে বলা হয়েছে যে, প্রিয়াংশী-কে যখন হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল, মাথায় অক্ষত অবস্থাতেই ছিল ওই কুকারটি। অর্থোপেডিক থেকে পেড্রিয়েটিক সমস্ত দফতরের ডাক্তারেরা একত্র হন একরত্তিকে বাঁচানোর প্রচেষ্টায়।

পরে হাসপাতালেই এক ড্রিল মিস্ত্রী প্রেসার কুকার কেটে, ছোট্ট প্রিয়াংশীর মাথা বের করেন সেখান থেকে।স্যার টি হাসপাতালের প্রশাসক হার্দিক গাথানির কথায়, শেষ পর্যন্ত আমাদের ডেকে পাঠাতে হয় এমন এক ব্যক্তিকে, যিনি বাসনপত্র নিয়ে কাজ করেন।তিনিই শিশুটির মাথা থেকে কেটে বের করেন ওই কুকার।

তবে ওই শিশুর বাড়ির লোকেরা জানিয়েছেন যে, তাঁরাও বাচ্চাটির মাথা থেকে প্রেসার কুকার বের করার অনেক চেষ্টা করেন। কিন্তু তাতে আখেরে লাভের লাভ কিছুই হয়নি। বরং হিতের বিপরীত হয়ে চোট পায় ছোট্ট শিশুটি।

এই মুহূর্তে বিপদমুক্ত এক বছরের প্রিয়াংশী। হাসপাতালের প্রশাসক জানান, মেয়েটির মাথায় অল্পবিস্তর চোট লেগেছে। তবে গুরুতর নয়। রক্ত চলাচল ঠিক রয়েছে কি না, সে দিকটা নিশ্চিত করার জন্য প্রিয়াংশীকে আমরা পর্যবেক্ষণে রেখেছি। সব কিছু যদি ঠিক থাকে তাহলে খুব শীঘ্রই হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে প্রিয়াংশীকে।