৪০ বছর এর পরেও তারুণ্য ̈ফিরে আসবে খুব সহজে এবং খুব তাড়াতাড়ি !!

120
৪০ বছর এর পরেও তারুণ্য ̈ফিরে আসবে খুব সহজে এবং খুব তাড়াতাড়ি !!

সুপ্রভাত বগুড়া্ (ফ্যাশন ও রুপচর্চা): মেডিকেল সাইন্সের অধ্যাপক, প্রশাধন এবং ত্বক চিকিৎসায় বিশেষজ্ঞ । ২০ বছরের অধিক সময় ধরে তিনি এই সেবা নিয়ে গবেষণা করে যাচ্ছেন । তিনি জানিয়েছেন,বয়স হলেও আপনার ত্বক আবারও তরুণ্য হতে পারে, প্লাষ্টিক সার্জারি বা ইনজেকশন ব্যাবহার না করে। “এই সাধারন সত্যটি অনুধাবন করুন এবং কারও কথা শুনবেন না।

৪০ বছর এর পরেও তারুণ্য ̈ফিরে আসবে খুব সহজে এবং খুব তাড়াতাড়ি !!

গত ১৫ দিন ধরে আমেরিকার একটি টেলিভিশন চ্যানেলে প্রসাধন জগতে নতুন কিছু সম্পর্কে আলোচনা হয়েছিল। তারা একটা দ্রুত কার্যকরী ঔষধের কথা বলেছিল যা সবারই হাতের নাগালে এবং সাধ্যের ভিতর টেলিভিশনের প্রোগ্রামের পরে প্রফেসর ডাঃ নওফল আমছার বিশেষ প্রসাধন চিকিৎসার উপরে আমাদের সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন।

বোটক্স ইনজেকশন বা প্লাষ্টিক সার্জারি ৩৫ বছর বয়সের পরে ত্বকের বয়স বুদ্ধি রোধ করতে পারে? এমন প্রশোনর জবাবে ডাক্তার নওফল আমছারবলেন- অবশ্যই এটা সত্যি ̈না বোটক্স ইনজেকশনের অনেক জঠিলতা আছে যেমন: এতে মুখের ̄স্বাভাবিক গড়ন পরিবর্তন হয়ে যায়। এতে খুব মারাত্বক প্রভাব ঘটে। প্লাষ্টিক সার্জারি করলে বয়সের ভাজ দুর হয় কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি ফেরত আসে। তবে আমার কিছু ব্যাক্তিগত প্রসাধনি আছে যা সহজেই এই সমস্যা দুর করে।

কিন্তু সব প্রসাধনি তা পারেনা ও লাইসেন্সকৃত নয়। চামড়ায় বয়সের ভাজ পরবে, এটাই বিজ্ঞান সম্মত। যদি তুমি এটার গোপন রহস্য জান তবে তোমার বয়স ১০/২০ বছর কমিয়ে ফেলতে পার। হাজার হাজার রোগিরা কোন ব্যায়বহুল প্লাস্টিক সার্জারি বা ইনজেকশন ব্যাবহার না করে এই প্রসাধনি ব্যাবহার করে উপকৃত হচ্ছেন। রহস্যটা হচ্ছে ত্বকের পুষ্টি ফিরিয়ে আনা ও চামড়ার কোষ ̧পুনরুজ্জীবিত করা।

৪০ বছর এর পরেও তারুণ্য ̈ফিরে আসবে খুব সহজে এবং খুব তাড়াতাড়ি !!

৪৫ বছর পরে কি ত্বকের তারুণ্য ফিরিয়ে আনা কিবাবে সম্ভব?                                                    জবাবে ডঃ নওফল আমছার বলেন, আমি আমার ৫০ উর্ধ্ব অনেক রোগীকে ফিরিয়ে দিয়েছি ব্যাথা ব্যাতীত ।তিনি আরও বলেন, আমি আমার স্ত্রীকে এই প্রসাধনি ব্যাবহার করতে দিয়েছি।এটি ব্যাবহারের ফলে,এখন অনেক লোকই ভাবে যে,সে আমার কণ্যা যদিও সে আমার থেকে দুই বছরের বড়, তার বয়স ৪৭।

আমার বেশিরভাগ রোগির বয়সই ৪০ উর্ধ্ব কিন্তু তাদের মুখে বয়সের ছাপ পড়েছে। তারা আমার কাছে অনেক রকম সমস্যার কথা বলে: গাড় বয়সের দাগ, ঠোট এবং চোখ ফুলে যাওয়া, মুখের গড়ন ফুলে যাওয়া, আরও অনেক কিছু। এই সমস্যা গুলো খুবই দুঃখজনক এবং জীবনকে কঠিন করে ফেলে।

৭৪ ভাগ পুরুষ মানুষই বলে যে, বয়সের ছাপ পড়া বেশির ভাগ মহিলায় যৌন আকর্ষন হারায়। কিন্তু অনেকেই বিশ্বাস করে যে, ভবিষ্যতের বয়সের ছাপ কোন সমস্যা নয়। আর মহিলারা অভিযোগ করে যে, তাদের জীবনই শেষ।আমি তাদের বলি,এই বিশেষ প্রসাধনি ব্যাবহার কর এবং এ সুযোগ ছেড়ে দিওনা।

প্রতিবেদক: কিভাবে আমারা ত্বকের তারুণ্য ফিরে আনব?

ডঃ নওফল আমছার: আমি সম্প্রতি আমার রোগিদের মুখের ব্যায়াম করি্যেছি এবং ৯৬ রকমের জঠিল ব্যায়াম দিয়েছি। এগুলো খুবই কার্যকর কিন্তু কঠিন ও দীর্ঘ মেয়াদি। অনেক লোকেরই কঠিন সময় যাচ্ছে, তারা শক্তি হারাচ্ছে কিন্তু প্রতিদিনকার ব্যায়াম করতে পারছেনা। তারা সহজেই আশা ছেড়ে দেয়। এই কারনেই আমরা রোগিরদের জন্য অন্য ̈পদ্বতি আবিষ্কার করার চেষ্টা করেছি এবং পেরেছি।

৪০ বছর এর পরেও তারুণ্য ̈ফিরে আসবে খুব সহজে এবং খুব তাড়াতাড়ি !!

তাহলে তো বেশ ভালো, আমার পাঠকদেরকে এ বিষয়ে কিছু বলুন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন- আমি যখন প্রথম এটার সম্মন্ধে শুনেছি তখন হেসেছিলাম। যখন এটা ব্যাবহার করলাম তখন আশ্চর্য ̈হলাম। ৩৪-৩৬ জন মহিলারা একটি গবেষনায় অংশ গ্রহন করেছিল এবং তাদের বয়স ১০/২৫ বছর কমে গিয়েছিল।

ডাঃ নওফল আমছার: ওয়েলনেস গোজি ক্রিম হচ্ছে ত্বকের বয়স বাড়ার কারনটাকে দূর করে। (ব্যাবহারের শুরুতেই) এবং দৃশ্যমান সবগুলি সমস্যা পরাপুরি দূর করে। আমাকে বিশ্বাস করুন, আমার বহু বছরের অভিজ্ঞতায় আমি পরিক্ষা করে দেখেছি, এতে আরোগ্য হয়। এবং বেশিরভাগ মহিলাদের জন্যে এটা সহজ, সরল এবং সল্প ব্যায়ে পাওয়া সম্ভব।

তাহলে আপনি বলছেন যে ওয়েলনেস গোজি ক্রিম খুব কম টাকায় কেনা সম্ভব। সবাই কি এটা কিনতে পারবে?                                                                                                                         ডঃ নওফল আমছার: হ্যা, সবাই এটা কিনতে পারবে। এবং অনলাইন এই ক্রিম দিয়ে ফার্মেসী ব্যাবসা পরিচালনা করতে পারবে। এতে করে ফার্মেসীতে খুব বেশি বিক্রি হবে। কিন্তু আমরা এই ক্রিমের ব্যাবসা ফার্মেসীতে করতে পারিনা। কেন এতে ফার্মেসীর অন্য ব্যাবসা ধবংস হয়ে যায়।অনেক বছর ধরে লোকেরা বিভিন্ন ধরনের তারুণ্য ধরে রাখার জন্যে ক্রিম কিনছে। তারা চায় তাদের দেখতে ভাল লাগুক।

এই ক্রিমটি তাদের খুশি করার জন্যে । এই জন্যে আমরা ওয়েলনেস গোজি ক্রিম কে একটা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পৃথিবীর সবার জন্যে একসাথে কাজ করা সম্ভব না তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন দেশে একটির পর আরেকটি প্রোগ্রাম করার। বর্তমানে এটি মালয়েশিয়ায় এবং বাংলাদেশে বিক্রি হচ্ছে এবং খুবই সাশ্রয় এবং প্রমোশন মূল্যে পাওয়া যাচ্ছে।

এই প্রমোশন কতদিন যাবৎ চলবে? প্রমোশন শেষ হলে এই গোজি ক্রিম কিভাবেই আবার অর্ডার করবে ?                                                                                                                         ডাঃ নওফল আমছার: হ্যা এটা সতি ̈, এই পরিকল্পনা শেষ হবে 29.10.2020 ইং সালে। তারপরও দরকার হলে ঐ সাইটে গিয়ে অনুরোধ করতে হবে। তাই যারাএই ভালো ক্রিম পেতে চায়, তারা তাড়াতাড়ি আসুন।